আর্সেনালকে বিধ্বস্ত করে শিরোপা নিশ্চিত করে ফেললো ম্যানসিটি!

0 9,973

 

লিগের প্রায় পুরোটা সময় এগিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ জেতা হচ্ছে না আর্সেনালের! অনেকটা নিজেদের হাতেই শিরোপা জয়ের সম্ভাবনা শেষ করে দিয়েছে তারা। সর্বশেষ বুধবার রাতে প্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানসিটির কাছে পুরোপুরি বিধ্বস্ত হয়েছে আর্সেনাল। ৪-১ গোলের বিশাল পরাজয়ের পর কার্যত শিরোপা স্বপ্ন শেষ হয়ে গেছে গানারদের।

নিজেদের মাঠ ইত্তেহাদ স্টেডিয়ামে ম্যানসিটির হয়ে কেভিন ডি ব্রুইন করেছেন জোড়া গোল। বাকি দুই গোল করেছেন জন স্টোনস এবং আর্লিং হালান্ড। আর্সেনালের হয়ে একমাত্র গোলটি করেছেন রব হোল্ডিং।

 

ম্যানসিটির বিপক্ষে মাঠে নামার আগেই টানা তিন ম্যাচ ড্র করেছিলো আর্সেনাল। তিন ম্যাচ থেকে মূল্যবান ৬ পয়েন্ট হারিয়ে এমনিতেই পেছনে পড়ার শঙ্কা ঘিরে বসে গানারদের। এমন পরিস্থিতিতে শিরোপা স্বপ্ন টিকিয়ে রাখতে হলে ম্যানসিটির বিপক্ষে জয় ছাড়া কোনো বিকল্প খোলা ছিল না আর্সেনালের সামনে।

কিন্তু ঘরের মাঠে মাইকেল আর্তেতার শিষ্যদের নিয়ে রীতিমত ছেলেখেলা করেছে ম্যানসিটি। এই জয়ের পর ৩১ ম্যাচে ৭৩ পয়েন্ট নিয়ে এখনও দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে পেপ গার্দিওলার শিষ্যরা। ৩৩ ম্যাচে ৭৫ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষেই রইলো আর্সেনাল।

ম্যানসিটি এখনও আর্সেনালের চেয়ে খেলেছে দুই ম্যাচ কম। এই দুই ম্যাচের গ্যাপ পূরণ করতে পারলে সিটির সঙ্গে ৪ পয়েন্টের ব্যবধান তৈরি হবে গানারদের। সুতরাং, বলায় যায় এবারের মৌসুমে আর্সেনালের শিরোপা জয়ের স্বপ্ন কার্যত শেষ।

অথচ, একটা সময় ম্যানসিটির চেয়ে ৮ পয়েন্ট এগিয়েছিলো আর্সেনাল। তখন মনে হচ্ছিল, এবার বুঝি ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকেই ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ শিরোপা জয় করবে তারা। কিন্তু একের পর এক ম্যাচে পয়েন্ট খোয়াতে খোয়াতে এখন শিরোপা জয়কেই অসম্ভব করে তুললো তারা।

ঘরের মাঠে ম্যানসিটি ম্যাচের প্রথম থেকেই আক্রমণাত্মক খেলা শুরু করে দেয়। সাত মিনিটের মাথায় সতীর্থের লম্বা করে বাড়ানো বল মাঝমাঠে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে হালান্ড ছোট পাসে খুঁজে নেন কেভিন ডি ব্রুইনকে। ওখান থেকে বল খুঁজে নেয় নিজের ঠিকানা। ১-০ গোলে এগিয়ে যায় ম্যানসিটি।

পিছিয়ে পড়েও আরও ছন্নছাড়া হয়ে খেলতে শুরু করে আর্সেনাল। প্রথমার্ধে বেশিরভাগ সময়ই ম্যাচের রাশ নিজেদের দখলে রাখে সিটি। বিরতির ঠিক আগে আসে ম্যাচের দ্বিতীয় গোল। ডি ব্রুইনের ফ্রি-কিকে দারুণ কোনাকুনি হেডে স্কোরলাইন ২-০ করেন জন স্টোন্স। রেফারি শুরুতে অফসাইডের বাঁশি বাজালেও ভিএআরে পাল্টায় সিদ্ধান্ত।

দ্বিতীয়ার্ধে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে আর্সেনাল তবে ম্যাচের ৫৪ মিনিটের মাথায় এসে তৃতীয় গোল হজম করে বসে তারা। তিন গোলে এগিয়ে থাকা সিটির বিরুদ্ধে হারই মেনে নিয়েছিল আর্সেনাল।

তবে সান্তনাসূচক গোলটি আসে ম্যাচের ৮৬ মিনিটের মাথায়। ডি বক্সে ফাঁকায় বল পেয়ে জোরাল শটে গোলটি করেন ইংলিশ ডিফেন্ডার রব হোল্ডিং। শেষ পর্যন্ত যদিও তা কেবলই সান্ত্বনার ছোঁয়া হয়েই থাকে।

তবে ব্যবধান বেশি সময় ৩-১ রাখেনি ম্যানসিটি। ম্যাচের অতিরিক্ত সময়ে শেষ মিনিটে ফিল ফোডেনের পাস বক্সে ফাঁকায় পেয়ে গোল করেন আর্লিং হালান্ড। আর তাতেই ৪-১ গোলের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়ে ম্যানচেস্টার সিটি।

এ নিয়ে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে এবারের মৌসুমে ৩৩তম গোল করলেন হালান্ড। নিজের অভিষেক মৌসুমেই রেকর্ড গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেন এই নরওয়েজিয়ান তারকা।

ম্যাচটি জিতে শিরোপা ভাগ্য পুরোপুরি নিজেদের হাতে নিতে চেয়েছিলেন পেপ গার্দিওলার দল। ম্যানসিটির বিরুদ্ধে এই নিয়ে টানা আট ম্যাচে হারল আর্সেনাল।

 

আইএইচএস/jn24

Leave A Reply

Your email address will not be published.