দেশে ফিরেছেন সাকিব

ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে দলের সঙ্গে নিউজিল্যান্ড সফরে যাননি। উড়াল দিয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে। অবশেষে পরিবারের সঙ্গে ছুটি কাটিয়ে দেশে ফিরেছেন টাইগার অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

0 4,998

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার (৬ জানুয়ারি) ভোরে যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে আসেন সাকিব। এদিকে বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) ওয়ানডে সংস্করণে সাকিব খেলবেন বলে আগে থেকেই জানা গিয়েছিল। শেষমেশ জানা যায়, সেন্ট্রাল জোন তাকে দলে নিয়েছে। মূলত এই টুর্নামেন্টটিতে অংশ নিতেই দেশে এসেছেন তিনি। আর বিসিএলের পরপরই বিপিএলের আসর শুরু হওয়ার কথা রয়েছে।

এদিকে ঐতিহাসিক জয়ের মুহূর্তে দলের সঙ্গে থাকতে না পারলেও শুভেচ্ছা বার্তা পাঠিয়েছেন ঠিকই। ম্যাচ জেতা থেকে ৬ রান দূরে থাকতেই সাকিব টুইট করেন, ‘বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্য বছরটা কী দারুণভাবে শুরু হলো। অধিনায়ক, খেলোয়াড় ও কোচিং স্টাফসহ সবাইকে অভিনন্দন।’

সাকিবের টেস্ট ক্রিকেট খেলা নিয়ে সম্প্রতি কথা বলেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। টেস্ট ক্রিকেট ছেড়ে দেওয়ার ব্যাপারে ক্রিকেট বোর্ডকে কিছুই জানাননি সাকিব। শেষ কথা অনুযায়ী দেশের হয়ে তিন ফরম্যাটে খেলার অঙ্গীকার করেছে সে। সময় সংবাদে এমনটাই জানিয়েছেন পাপন।

পরিবার থাকে যুক্তরাষ্ট্রে। আর সাকিব যাযাবরের মতো এদেশ থেকে ওদেশে ঘুরে জাতীয় দলের হয়ে খেলছেন। করোনার জন্য প্রায় সব সিরিজই অনুষ্ঠিত হচ্ছে বায়োবাবলে। যার জন্য প্রতিটি সিরিজে দৈর্ঘ্য আগের চেয়ে বড় হচ্ছে।

সাকিব নিষেধাজ্ঞা থেকে ফেরার পর বাংলাদেশ দল খেলেছে ৮টি টেস্ট। এর মধ্যে মাত্র তিনটিতে ছিলেন এই অলরাউন্ডার। ইনজুরির জন্য মিস করেছেন দুটি ম্যাচ।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে সাকিব বলেছিলেন, জাতীয় দলের হয়ে তিন ফরম্যাট খেলা দিন দিন কঠিন হয়ে যাচ্ছে। স্পষ্ট করে এও জানান, হয়তো ছেড়ে দিবেন টেস্ট ক্রিকেট। যদিও এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত ক্রিকেট বোর্ডকে কিছুই জানাননি দেশসেরা ক্রিকেটার। অবশ্য বোর্ডের চাওয়া দেশের হয়ে তিন ফরম্যাটেই খেলুক সাকিব।

পাপন বলেন, সাকিব টেস্ট ক্রিকেট ছেড়ে দিতে পারে এ ব্যাপারে আমার সঙ্গে কোনো কথা হয়নি। তবে ওর ব্যাপারে একটা অনিশ্চয়তা তো আছেই। কারণ সে কখন খেলবে আর কখন খেলবে না, এটা নিয়ে সবসময়ই একটা অনিশ্চয়তা কাজ করে। আর এটি দলের জন্য যেমন খারাপ প্রভাব পড়ে, তেমনি তার নিজের ক্যারিয়ারের জন্যও খারাপ।

বিসিবি প্রধান আরও বলেন, আমার সঙ্গে তার সবশেষ যে কথা হয়েছে, যতদূর জানি সে সব ফরম্যাটেই খেলবে। নিঃসন্দেহে সে আমাদের সেরা খেলোয়াড়। কিন্তু বেস্ট খেলোয়াড় হয়ে কী লাভ, যদি দেশের জন্য সবসময় খেলতে না পারে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.