রোনালদোর আমন্ত্রণ ফেরালেন ফোন ভাঙার অভিযোগ আনা সেই কিশোর

গুডিসন পার্কে গত শনিবার (৯ এপ্রিল) ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচে এভারটনের বিপক্ষে হারের পর মেজাজ হারানো ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ড্রেসিং রুমে প্রবেশের পথে ভিডিও করতে থাকা এক কিশোরের ফোন ভাঙেন। পরক্ষণে অবশ্য নিজের আচরণের জন্য দুঃখ প্রকাশ করে ওই কিশোরের কাছে ক্ষমা চান রোনালদো। এদিকে জ্যাক হার্ডিং নামে ওই কিশোরকে পর্তুুগিজ তারকা আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। তবে কিশোরের পরিবার থেকে তার আমন্ত্রণ ফিরিয়ে দেওয়া হয়। খবর ডেইলি মেইলের।

0 9,726

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর আমন্ত্রণ ফিরিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে লিভারপুল ইকোকে জ্যাকের মা সারাহ ক্যারি বলেন, ‘ইউনাইটেড খুব ভয়ংকরভাবে ব্যাপারটাকে সামলেছে। সত্যি বলতে আসলে বিষয়টাকে আরও খারাপ করেছে।’

এরপর তিনি যোগ করেন, ‘ঘটনাটাকে আমি যেভাবে দেখি- কেউ আপনাকে রাস্তায় লাঞ্ছিত করল আর এরপর রাতে খাবার খেতে যেতে বলল! আমরা যাব না, কেন যাব, শুধু সে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো বলে? এতে বিষয়টা দাঁড়াবে এমন, আমরা তার কাছে ঋণী। কিন্তু আমি দুঃখিত, আমরা তা নই।’

এর আগে গুডিসন পার্কে গত শনিবার এভারটনের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের স্বপ্নটা জিইয়ে রাখতে জয়ের বিকল্প ছিল না ম্যানইউয়ের। সবশেষ পাঁচ ম্যাচে মাত্র একটিতেই জয়ের মুখ দেখেছে রেড ডেভিলরা। এমন হতাশাজনক মৌসুমের পর বিগত এক যুগে প্রথমবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগে অনুপস্থিত থাকার আশঙ্কা দেখা গিয়েছে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ইতিহাসের সর্বোচ্চ গোলদাতা রোনালদোর।

তাই ওই ম্যাচে হারের পর আর মেজাজ ধরে রাখতে পারেন নি পাঁচ বারের ব্যালন ডি’অর জয়ী তারকা। ম্যাচ শেষে রাগে গজরাতে গজরাতে ছেড়েছেন মাঠ। আর এ সময়েই জন্ম দিয়েছেন বিতর্কের। রোনালদোর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষ এভারটনের সমর্থকের সঙ্গে অসদাচরণের। এই অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনায় সেই এভারটন ফ্যানের হাতে থাকা সেলফোন ভেঙে চুরমার হয়ে গেছে।

এরপর অবশ্য রোনালদো নিজের ভুল বুঝতে পেরে ক্ষমা চেয়ে নিজের ইনস্টাগ্রাম পোস্ট করেন। পর্তুগিজ উইঙ্গার লেখেন, কঠিন মুহূর্তগুলোতে আবেগের সঙ্গে মোকাবিলা করা কখনোই সহজ না। তবু আমাদের সব সময় সম্মান করতে হবে, ধৈর্যশীল হতে হবে এবং ফুটবলপ্রেমী তরুণদের জন্য উদাহরণ স্থাপন করতে হবে। আমি আমার ক্ষোভের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করতে চাই এবং যদি সম্ভব হয়। ফেয়ার-প্লে আর খেলোয়াড় সুলভ মানসিকতার অংশ হিসেবে আমি এই সমর্থককে ওল্ড ট্রাফোর্ডে একটি খেলা দেখার জন্য আমন্ত্রণ জানাচ্ছি।

অবশ্য রোনালদোর দাওয়াত প্রত্যাখানের সিদ্ধান্তটি নাকি জ্যাক নিজে থেকেই নিয়েছেন। এ বিষয়ে জ্যাকের মা বলেন, ‘আমরা বিনয়ের সঙ্গে ইউনাইটেডে যাওয়া প্রত্যাখ্যান করছি। কারণ জ্যাক সেখানে যেতে এবং রোনালদোকে দেখতে চায় না। সে এটা খুব পরিষ্কার করে বলেছে। এখানে আমার কোনো কথা নেই, এটা আমার ছেলে বলেছে। দিনশেষে, এটা তারই ব্যাপার।’

এদিকে ব্যাপারটা গড়িয়েছে পুলিশ অবধি। জানা গেছে, ওই কিশোর প্রথমবারের মতো দেখতে গিয়েছিল ফুটবল ম্যাচ। তার ফোন ভেঙে ফেলায় রোনালদোর বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

জ্যাকের মা এ বিষয়ে বলেন, ‘এটা আমার চেয়ে তাকে বেশি প্রভাবিত করেছে। আমি নিজের সবকিছু দিয়ে তার মানসিক উন্নতির চেষ্টা করছি- সে ইউনাইটেড যেতে এবং রোনালদোকে দেখতে চায় না। আমি এখানে যেটা নিয়ে কথা বলছি, পুরো বিষয়টাই পুলিশের হাতে।’

Leave A Reply

Your email address will not be published.