মেসিকে দেখে মনে হয় সে আমার টিমমেট: রোনালদো

0 20,419

২০০৬ সাল থেকে বিশ্বকাপ খেলে আসছেন ফুটবলের দুই মহানায়ক লিওনেল মেসি এবং ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। এবার নিয়ে এটা তাদের পঞ্চম বিশ্বকাপ। শুধু তাই নয়, এবারই বিশ্বকাপকে গুডবাই জানিয়ে দেবেন গ্রহের সেরা দুই ফুটবলার।

দু’জনের মধ্যে কে সেরা সে বিতর্কও রয়েছে। তবে কাতার বিশ্বকাপ শুরুর ঠিক আগে এক সাক্ষাৎকারে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো বরং প্রশংসাই করলেন লিওনেল মেসির। অকপটে জানিয়ে দিলেন, আর্জেন্টাইন সুপারস্টারের সঙ্গে তার সম্পর্ক ভালো, তবে তারা বন্ধু নন।

পিয়ার্স মর্গ্যানের সঙ্গে সাক্ষাৎকারে মেসির সম্পর্কে রোনালদোর কাছে জানতে চাওয়া হলে, উত্তরে তিনি আর্জেন্টাইন তারকা লিওনেল মেসিকে জাদুকর বলেও উল্লেখ করেন। মেসির দারুণ প্রশংসা করেন পর্তুগিজ তারকা। রোনালদো এটাও জানান, তাদের মধ্যে দারুণ শ্রদ্ধার সম্পর্ক বিদ্যমান। একে অপরকে তারা শ্রদ্ধা করেন খুব।

স্প্যানিশ এল ক্লাসিকোয় রিয়াল এবং বার্সার হয়ে দুই মহাতারকা বহুবার মুখোমুখি হয়েছেন। দু’জনের সাক্ষাতের জন্য এল ক্লাসিকোর গুরুত্বও বেড়ে গিয়েছিল অনেকগুণ। লা লিগা জনপ্রিয়তার শিখরে পৌঁছে যায়। মেসি বার্সেলোনা ছেড়ে চলে যান পিএসজিতে। রোনালদো রিয়াল ছেড়ে জুভেন্তাস হয়ে এখন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে। এখন সে ম্যানইউ’র সঙ্গেও সম্পর্ক খারাপের দিকে রোনালদোর।

পিয়ার্স মর্গ্যানকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ম্যানইউর বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছিলেন সিআর সেভেন। কিন্তু মেসির প্রসঙ্গ উঠতেই রোনালদো বলেন, ‘মেসি অবিশ্বাস্য খেলোয়াড়। জাদুকর। টপ প্লেয়ার। আমরা দু’জনে ১৬ বছর ধরে এই মঞ্চ শেয়ার করছি। ভাবুন একবার ১৬ বছর। মেসির সঙ্গে আমার সম্পর্ক খুবই ভাল। আমি ওর বন্ধু হয়তো না। বন্ধু বলতে যা বোঝায় সেটা হয়তো আমি নই। এক বন্ধু আরেক বন্ধুর ঘরে যায়, ফোনে কথা বলে আমি সেসব করি না। কিন্তু আমি ওর সতীর্থের মতোই। ওকে দেখলে আমার সতীর্থই মনে হয়।’

ব্যালন ডি’অরের মঞ্চে বসেও মেসির প্রশংসা করেছিলেন রোনালদো। খেলার মাঠে দু’জনের যতই প্রতিদ্বন্দ্বিতা থাকুক না কেন, মাঠের বাইরে দু’জনই একে অপরের প্রতি অগাধ শ্রদ্ধা প্রদর্শন করেন।

রোনালদো আরও বলেন, ‘মেসি আমার সম্পর্কে যেভাবে কথা বলে তাতে আমি ওকে সত্যিই খুব শ্রদ্ধা করি। আমার স্ত্রী সম্পর্কে শ্রদ্ধাশীল তার স্ত্রী, এমনকি আমার বান্ধবীও ওদের সম্মান করে। আমার বান্ধবী আর্জেন্টিনার। মেসি সম্পর্কে আমি আর কী বলব? দারুণ একজন মানুষ। ফুটবলকে অনেক কিছু দিয়েছে।’

একই সাক্ষাৎকারে রোনালদোকে জিজ্ঞাসা করা হয়, ধরা যাক ফাইনালে আর্জেন্টিনা ও পর্তুগাল মুখোমুখি হল। সেই ফাইনালে রোনালদো দুটি এবং মেসি দুটি গোল করলেন। ৯৪ মিনিটে রোনালদো হ্যাটট্রিক করে বিশ্বকাপ জিতে নেন। এরকম আইডিয়া কেমন লাগল রোনালদোর?
উত্তরে সিআর সেভেন জানান, এমন স্বপ্ন প্রত্যাশাই করেননি তিনি। যদি তাই হয়, তাহলে ফাইনালের পরই অবসর নিয়ে ফেলবেন।

 

আইএইচএস/JN

Leave A Reply

Your email address will not be published.