যেভাবে ফাইনালে ইংল্যান্ড এবং পাকিস্তান

0 12,717

কামরান আহমেদ

অস্ট্রেলিয়ায় চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের অষ্টম আসরের খেলা প্রায় শেষ দিকে। আর মাত্র বাকি রয়েছে একটি খেলা। এরইমধ্যে চূড়ান্ত হয়ে গেছে ফাইনালের লাইনআপ।

আজ ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে মুখোমুখি হলো ভারত এবং ইংল্যান্ড। এ ম্যাচেই ভারতকে লজ্জাজনক পরাজয় উপহার দিয়ে তৃতীয়বারের মতো ফাইনালে উঠলো ইংল্যান্ড।

অ্যাডিলেড ওভালের টস হেরে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ইনিংস শেষে ইংল্যান্ডকে ১৬৯ রানের চ্যালেঞ্জ দিয়েছিল ভারত। জস বাটলার এবং অ্যালেক্স হেলসের ব্যাটে ভর করে ২৪ বল হাতে রেখে ১০ উইকেটে ম্যাচ জিতেছে জস বাটলারের দল। যে কারণে ভারত-পাকিস্তান হাইভোল্টেফাইনালের সম্ভাবনা শেষ হয়ে গেল।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের পর দ্বিতীয় কোনো দেশ হিসেবে আগামী রোববার মেলবোর্নে দ্বিতীয়বার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ পাবে ইংল্যান্ড অথবা পাকিস্তান।

বাটলার-হেলস জুটিতে ১৭০ রান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ইতিহাসে যে কোনো উইকেটে সর্বোচ্চ রানের বিশ্বরেকর্ড গড়ে দলকে ফাইনালে পৌঁছে দেন। বাটলার ৮০ ও হেলস ৮৬ রানে অপরাজিত থাকেন। এই হারে দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিলো ভারত। এর আগে দুবার, ২০১০ ও ২০১৬ সালে বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলেছিল ইংলিশরা। ২০১০ সালে প্রথম ও সর্বশেষ বিশ্বকাপ জিতেছিল ইংল্যান্ড।

এদিকে ইংল্যান্ডের মতো পাকিস্তানও এবার নিয়ে তৃতীয়বারের মতো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আসরের ফাইনালে উঠেছে। এর আগে পাকিস্তান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম আসরের (২০০৭ সাল) ফাইনালে ভারতের কাছে ৫ রানে হেরেছিল হয়েছিল। তবে দ্বিতীয়বার ২০০৯ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ফাইনালে উঠে ইংল্যান্ডের মাটিতে চ্যাম্পিয়ন হয় পাকিস্তান। লর্ডসের ফাইনালে শ্রীলঙ্কাকে ৮ উইকেটে হারিয়ে দিয়েছিল ইউনিস খানের দল। এরপর আর পাকিস্তান কুড়ি ওভারের এ বিশ্বকাপের খেতাব জেতেনি। এমনকি সেবারের পর ফাইনালেও এবার উঠলো এই প্রথম।

অন্যদিকে ইংল্যান্ড গতকাল ফাইনালের টিকিট কনফার্ম করতেই ক্রিকেটপ্রেমীদের মনে পড়েছে ১৯৯২ সালের বিশ্বকাপ ফাইনালের কথা। সেবারের বিশ্বকাপ আয়োজনের দায়িত্বে ছিলো অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড। সেবারও ভারত হারিয়েছিল পাকিস্তানকে। কিন্তু ভারত ফাইনালে উঠতে পারেনি। সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডকে হারিয়েছিল পাকিস্তান। এবারের টি-২০ বিশ্বকাপ সেমিফাইনালেও বাবর আজমের দল হারিয়ে দিয়েছে কেন উইলিয়ামসনের নেতৃত্বাধীন নিউজিল্যান্ডকে।

১৯৯২ সালের ২৫ মার্চ মেলবোর্নের ওই ফাইনালে ইংল্যান্ডকে ২২ রানে হারিয়ে বিশ্বকাপ জিতেছিল ইমরান খানের পাকিস্তান। এবার সেই এমসিজিতেই মধুর প্রতিশোধ নেয়ার সুযোগ পাবে জস বাটলারের ইংল্যান্ড, যারা আবার টি-২০ আন্তর্জাতিকে বিশ্বের ২ নম্বর দল।
আয়ারল্যান্ডর কাছে হারের ধাক্কা সামলে দাঁড়িয়ে দল যেভাবে খেলছে তাতে সন্তুষ্ট ইংল্যান্ড অধিনায়ক জস বাটলার। দলের ব্যাটিং গভীরতাই আগ্রাসী ব্যাটিংয়ের সহায়ক পরিস্থিতি তৈরি করে দিচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি। অ্যালেক্স হেলসের পাশাপাশি বাটলার এদিন প্রশংসা করেছেন ক্রিস জর্ডনের। মার্ক উডের পরিবর্ত হিসেবে দলে ঢুকে চলতি টি-২০ বিশ্বকাপ ফাইনালের প্রথম ম্যাচেই তিনি যেভাবে বোলিং করেছেন, বিশেষ করে ডেথ ওভারে তাতে খুশি বাটলার।

আইএইচএস/

Leave A Reply

Your email address will not be published.