আর্শদীপকে আক্রমণ ভারতীয় সমর্থকদের, পাশে দাঁড়ালেন পাকিস্তানি ক্রিকেটার

‘পাকিস্তান চলে যাও’-গেল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে হারের পর এমন আক্রমণাত্মক কথাই শুনতে হয়েছিল ভারতের পেসার মোহাম্মদ শামিকে। ১০ উইকেটের সেই পরাজয়ের পর সমর্থকদের তোপের মুখে পড়েছিলেন শামি। এবার একই পরিণতি আর্শদীপ সিংয়েরও।

0 12,727

দুর্দান্ত আইপিএল যাত্রার পর গেল জুলাইয়ে জাতীয় দলের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয় আর্শদীপের। নিজের সামর্থ্যের প্রমাণ দিয়ে অভিষেকের এক মাস না পেরোতেই এশিয়া কাপের মতো বড় মঞ্চে দলে জায়গা করে নেন। রান আটকানো কিংবা গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে উইকেট শিকার করে অধিনায়কের কাজটাও সহজ করে দিচ্ছিলেন।

এইতো সবশেষ ম্যাচে রোববার (৪ সেপ্টেম্বর) পাকিস্তানের বিপক্ষে ‘খলনায়ক’ হওয়ার ম্যাচটিতেও শেষ ওভারে দুর্দান্ত বল করে ম্যাচটা প্রায় ঘুরিয়ে দিচ্ছিলেন। ৬ বলে ৭ রানের সহজ টার্গেটটাকেও আর্শদীপের বোলিংয়ে কঠিন মনে হচ্ছিল একটা সময়। যদিও শেষ পর্যন্ত পাকিস্তান ম্যাচটি জিতে নেয় এক বল হাতে রেখেই।

চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানের কাছে ৫ উইকেটে হারের দায় চাপানো হচ্ছে আর্শদীপ সিংয়ের ওপর। ১৮তম ওভারে আসিফ আলির একটি সহজ ক্যাচ ফেলে দেন আর্শদীপ সিং। জীবন পেয়ে ম্যাচটাকেও নিজেদের করায়ত্ত্বে নিয়ে নেন মারকুটে এ ব্যাটার। আর্শদীপ যখন আসিফের ক্যাচ ফেলে দেন, তখন রানের খাতাই খোলেননি পাক ব্যাটার।

এরপর ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেন এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান। ৮ বলে ২টি চার এবং ১টি ছক্কার সাহায্যে ১৬ রানের ইনিংস খেলেন। যা পাকিস্তানের জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। সেই সময় যদি আর্শদীপ যদি আসিফের ক্যাচ মিস না করতেন, তা হলে হয়তো ম্যাচের ফল ভারতের পক্ষেই যেত বলে মনে করছেন অনেকে। যে কারণে সোশ্যাল মিডিয়ায় আর্শদীপের তীব্র সমালোচনা করা হচ্ছে। এমনকী অনেকে তাকে ব্যক্তিগত আক্রমণ করতেও ছাড়ছেন না।

তবে টিম ইন্ডিয়ার তরুণ পেসারের এ দুঃস্বময়ে পাশে দাঁড়িয়েছেন বিরাট কোহলি থেকে হরভজন সিং, ইরফান পাঠান থেকে শুরু করে অনেক ক্রিকেটারই। এছাড়া তাকে সমর্থন দিয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক অলরাউন্ডার মোহাম্মদ হাফিজও।

ম্যাচ-পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে বিরাট কোহলি বলেন, চাপের মধ্যে যে কারও সঙ্গে এটা হতে পারে। এটা একটা বড় ম্যাচ, পরিস্থিতিও ছিল টানটান। আমার মনে আছে, আমি যখন চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে আমার প্রথম ম্যাচ খেলেছিলাম, তখন বাজে শট খেলে আউট হয়েছিলাম। চাপের মুখে যে কেউ ভুল করতেই পারে।

ইরফান পাঠান লিখেছেন, আর্শদীপ একজন শক্তিশালী ব্যক্তি, এমনই থাকুন। সাবেক স্পিনার হরভজন সিং লিখেছেন, আর্শদীপ সিংয়ের সমালোচনা করা বন্ধ করুন, কেউ ইচ্ছাকৃত ভাবে একটি ক্যাচ ছাড়ে না। আমরা আমাদের ছেলেদের জন্য গর্বিত, পাকিস্তান এখানে অনেক ভালো খেলা খেলেছে। লজ্জা এমন লোকেদের জন্য, যারা এই প্ল্যাটফর্মে আর্শ এবং দল নিয়ে খারাপ কথা বলছে এবং আমাদের নিজেদের ছেলেদের ছোট করছে।

এদিকে, পাকিস্তানের সাবেক অলরাউন্ডার মোহাম্মদ হাফিজ লিখেছেন, ভারতীয় দলের সমর্থকদের কাছে আমার অনুরোধ, খেলাধুলায় আমরা মানুষ হিসেবে ভুল করি। দয়া করে এই ভুলগুলো নিয়ে কাউকে হেয় করবেন না।

ভারতীয় ক্রিকেট কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকার মনে করেন, মোহাম্মদ রিজওয়ান এবং নেওয়াজের জুটি ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছে। 

Leave A Reply

Your email address will not be published.