বাতিল হওয়া ম্যাচটি খেলতেই হবে আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিলকে

গত বছর সেপ্টেম্বরে সাও পাওলোয় ব্রাজিলের মুখোমুখি হয়েছিল আর্জেন্টিনা। তবে ম্যাচ শুরু হওয়ার কিছুক্ষণ পরই মাঠে হানা দেয় ব্রাজিলের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। আর্জেন্টিনার চারজন খেলোয়াড় দেশটির করোনা সম্পর্কিত বিধি লঙ্ঘন করেছে এই অভিযোগে তখন তাদের আটক করতে উদ্যত হয় ব্রাজিলের আইন প্রয়োগকারীরা। অনাকাঙ্ক্ষিত ওই ঘটনার পর ম্যাচটি বাতিল হয়ে যায়। কিন্তু ফিফা জানিয়ে দিয়েছে বাতিল হওয়া সেই ম্যাচটি পুনরায় খেলতে হবে তাদের।

0 227

আর্জেন্টিনার চারজন খেলোয়াড় ব্রাজিলের করোনা সম্পর্কিত বিধি লঙ্ঘন করেছে এই অভিযোগে তখন ম্যাচের মাঝেই উদ্যত হয় ব্রাজিলের আইন প্রয়োগকারীরা। ইংল্যান্ডে খেলা আর্জেন্টিনার চার খেলোয়াড় ক্রিস্টিয়ান রোমেরো, জিওভান্নি লো সেলসো, এমিলিয়ানো মার্তিনেজ ও এমিলিয়ানো বুয়েন্দিয়াকে সে সময় দুই ম্যাচ নিষিদ্ধও করে ফিফা। এছাড়া দুই দেশের ফুটবল ফেডারেশনকে জরিমানাও করা হয়। এরপরই আপিল করে ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার ফুটবল ফেডারেশন।


ব্রাজিল এবং আর্জেন্টিনা দুই দলই ইতোমধ্যে কাতার বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে। তাই দুই দলের কেউই এখন আর এই ম্যাচটি খেলতে সম্মত হচ্ছিল না। গত ফেব্রুয়ারিতে ফিফা যখন প্রথমবার এই ম্যাচটি পুনরায় খেলার নির্দেশ দেয় দুই দলকে, তখন আর্জেন্টিনা ফিফার নির্দেশের বিরুদ্ধে ক্রীড়া আদালতে নালিশ জানানোর কথাও বলেছিল।

এবার ফিফা দুই দলের সেই ম্যাচকে ঘিরে করা আপিলগুলো পর্যালোচনা করে ম্যাচটি পুনরায় আয়োজনের নির্দেশ বহাল রেখেছে। এছাড়া সেই ম্যাচে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার জন্য দুই দলকেই জরিমানা করেছে ফিফা। ম্যাচটি বাতিল হওয়ার জন্য তখন দুই দেশের ফুটবল ফেডারেশনকে করা ৫০ হাজার সুইস ফ্রাঁ জরিমানা বহাল রেখেছে ফিফার ডিসিপ্লিনারি কমিটি।

এদিকে ফিফার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘দুপক্ষের আবেদন বিশ্লেষণ এবং সব পরিস্থিতি বিবেচনার পর ফিফার আপিল কমিটি নিশ্চিত করছে, ম্যাচটি পুনরায় খেলতে হবে।’

ম্যাচটি খেলতে শেষ পর্যন্ত দুই দেশ খেলতে সম্মত হবে নাকি বিষয়টি নিয়ে আরও জলঘোলা হবে সেটা সময়ই বলে দেবে। আগামী জুনে অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন ক্রিকেট স্টেডিয়ামে একটি প্রীতি ম্যাচ খেলবে আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিল। 

Leave A Reply

Your email address will not be published.