আর্জেন্টিনা দলে জায়গা হারাচ্ছেন মেসি

লাতিন আমেরিকা অঞ্চলের দ্বিতীয় দল হিসেবে আগেই বিশ্বকাপ নিশ্চিত হয়ে গেছে আর্জেন্টিনার। তবে কনমেবল অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব এখনো শেষ হয়নি।

0 4,888

চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে অর্থাৎ আগামী ২৮ জানুয়ারি চিলির বিপক্ষে মাঠে নামবে আর্জেন্টিনা। এ ছাড়া পরের ম্যাচে কলম্বিয়ার বিপক্ষে ঘরের মাঠে খেলবে মেসি বাহিনী। যদিও এই দুটি ম্যাচে অধিনায়ক লিওনেল মেসি খেলবেন কি না সেটি নিয়ে এত দিন একটা ধোঁয়াশা ছিল।

কারণ করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের প্রভাব বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গনে আবারও পড়তে শুরু করেছে। এরই মধ্যে অনেক ম্যাচ বাতিল হয়ে গেছে। এ ছাড়া ফুটবল ক্লাবগুলোর অবস্থাও যাচ্ছেতাই। এমন অবস্থায় দেশের হয়ে খেলতে ক্লাবগুলো তাদের ফুটবলারদের ছাড়বে কি না এটা যেমন বড় প্রশ্ন, তেমনি খেলোয়াড়রা খেলতে গিয়ে করোনা আক্রান্ত হবেন না সেটাও বলে দেওয়া যাচ্ছে না।

আর তাই বিষয়টা ভাবাচ্ছে আর্জেন্টাইন কোচ লিওনেল স্ক্যালোনিকেও। তার দল যেহেতু এরই মধ্যে কাতার বিশ্বকাপের টিকিট নিশ্চিত করে ফেলেছে আর তাই আসন্ন দুটি ম্যাচে মেসিকে দলে রাখতে চান না তিনি। দেশটির সংবাদমাধ্যম টিওয়াইসি স্পোর্টসের বরাতে এমনটাই জানা যাচ্ছে।

বড়দিনের ছুটিতে কদিন আগেই দেশে গিয়ে করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন পিএসজির আর্জেন্টাইন তারকা লিওনেল মেসি। এরপর এমন অবস্থায় তাকে আবারও দেশের হয়ে খেলতে দেবে কি না ক্লাব সেটাও ছিল বড় প্রশ্ন। আর তাই হয়তো আপাতত তাকে ছাড়াই ভাবছেন স্ক্যালোনি।

এদিকে দিন দুয়েক আগেই পাওয়া গেছে সুখবরটা। করোনা থেকে সেরে উঠেছেন মেসি। করোনাভাইরাসের পরীক্ষায় ফল নেগেটিভ এসেছে এই আর্জেন্টাইনের।

মহামারি এই রোগ থেকে মুক্তির পর মেসি ফিরেছেন পিএসজির আঙিনায়। এখন ডাক্তারদের প্রাসঙ্গিক ফিটনেস পরীক্ষার পর জানা যাবে তিনি লিঁওর বিপক্ষে ম্যাচে খেলতে পারবেন কি না।

ক্লাবের এক স্টাফ আক্রান্ত হওয়ার পর করোনাভাইরাসে পজিটিভ হন মেসি। শুধু মেসিই নন, তিনিসহ আরও ৩ খেলোয়াড় করোনায় আক্রান্ত বলে জানিয়েছিল পিএসজি ক্লাব কর্তৃপক্ষ। ফরাসি লিগ কাপ কুপ ডে ফ্রান্সের আগে সব খেলোয়াড়কে যখন করোনা টেস্ট করা হয় তখন করোনা পজিটিভ আসে পিএসজির চার খেলোয়াড়ের। করোনায় আক্রান্ত হওয়ার কারণে ভানিসের বিপক্ষে লিগ কাপ ম্যাচে খেলতে পারেননি মেসি।

মেসি করোনা আক্রান্ত হলে পিএসজির পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, করোনা টেস্টে আমাদের চারজন ফুটবলার পজিটিভ ধরা পড়েছে। তারা হলেন- হুয়ান বেরনাত, সার্জিও রিকো, নাথান বিতুমাজাল এবং লিওনেল মেসি। আমরা তাদের দল থেকে আলাদা করে কোয়ারেন্টাইনে রেখেছি। তারা আমাদের স্বাস্থ্য প্রোটোকলে রয়েছে।

ইউরোপে করোনার যে সুনামি লেগেছে তার থেকে কোনোভাবে বাদ যাচ্ছে না নামিদামি ফুটবল ক্লাবগুলোর খেলোয়াড়রা। এর আগে গত কয়েক দিন করোনা দাপট দেখিয়েছে ইংল্যান্ডের ক্লাবগুলোতে। সেই দাপট চলে এসেছে ফ্রান্স-স্পেনেও।

Leave A Reply

Your email address will not be published.