অমিত হাবিবের মৃত্যুতে তথ্যমন্ত্রীর শোক

দৈনিক দেশ রূপান্তর পত্রিকার সম্পাদক, প্রখ্যাত সাংবাদিক অমিত হাবিবের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ

0 7,197

তার রুহের আত্মার শান্তি কামনা করেন ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান তথ্যমন্ত্রী।

ড. হাছান তার শোকবার্তায় বলেন, দৈনিক খবর থেকে শুরু করে সমকাল, কালের কণ্ঠসহ বিভিন্ন পত্রিকায় সাংবাদিকতা ও সম্পাদনা এবং শেষে দৈনিক দেশ রূপান্তরের সম্পাদকের দায়িত্বপালন করেন অমিত হাবিব, তার অকাল মৃত্যু দেশের সাংবাদিকতা জগতের জন্য এক অপূরণীয় ক্ষতি। নিবেদিতপ্রাণ এ সাংবাদিকের কর্মময় জীবন থেকে অনেক কিছু শেখার আছে।


গেল ২১ জুলাই অফিসে কর্মরত অবস্থায় হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে অমিত হাবিবকে বিআরবি হাসপাতালে নেয়া হয়। এরপর থেকেই তিনি ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন ছিলেন। শারীরিক অবস্থা আরও খারাপ হওয়ায় তিন দিন আগে তাকে বিআরবি হাসপাতাল থেকে আগারগাঁওয়ের নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে নেয়ার পর অবস্থা আরও খারাপ হতেই থাকে। অবশেষে সবাইকে ছেড়ে বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) রাত ১১টা ১৫ মিনিটে মাত্র ৫৮ বছর বয়সে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান তিনি।

অমিত হাবিব ১৯৬৪ সালের ২৩ অক্টোবর তৎকালীন বৃহত্তর যশোরের ঝিনাইদহে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৮৭ সালে খবর গ্রুপ অব পাবলিকেশন্সে একই সঙ্গে রিপোর্টার ও সাব-এডিটর হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন তিনি। পরে সাপ্তাহিক পূর্বাভাস পত্রিকায় সাব-এডিটর পদে যোগ দেন। ১৯৯১ সালে দৈনিক আজকের কাগজে সিনিয়র সাব-এডিটর হিসেবে যোগ দেন। পরের বছর একই পদে যোগ দেন দৈনিক ভোরের কাগজে। অল্পদিনের মধ্যে পদোন্নতি পেয়ে তিনি সেখানে যুগ্ম বার্তা সম্পাদক এবং পরে বার্তা সম্পাদক হন।

এরপর ২০০৩ সালে দৈনিক যায়যায়দিন পত্রিকায় প্রধান বার্তা সম্পাদক হিসেবে যোগ দেন অমিত হাবিব। ২০০৭ সালে তিনি চীনের আন্তর্জাতিক বেতারে বিদেশি বিশেষজ্ঞ হিসেবে যোগ দিয়ে বেইজিং চলে যান। কিছুদিন পর তিনি সেখান থেকে দেশে ফিরে আসেন। এরপর যোগ দেন দৈনিক সমকালে প্রধান বার্তা সম্পাদক হিসেবে। সেখান থেকে ২০০৯ সালে কালের কণ্ঠে নির্বাহী সম্পাদক এরপর উপদেষ্টা সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এরপর ২০১৮ সালে দৈনিক দেশ রূপান্তরের সম্পাদকের দায়িত্ব নেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.