দেশ বিক্রি নয়, উন্নয়নের উচ্চতা বাড়াতে সফরে প্রধানমন্ত্রী: কাদের

0 15,923

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের পতাকা সমুন্নত রাখার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, বিএনপি রাজনীতিতে পরাজিত হয়ে এখন দেশের অর্থনীতিকে পরাজিত করার টার্গেটে নেমেছে। প্রহসনের নির্বাচনে এদেশের মানুষ আর ফিরে যাবে না। শেখ হাসিনা দেশ বিক্রি করতে বিদেশে যাননি, গিয়েছেন দেশের উন্নয়নের উচ্চতা বাড়াতে।

সোমবার (১ মে) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে শ্রমিক দিবসের আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি। মহান মে দিবস উপলক্ষে এই আলোচনার সভার আয়োজন করে জাতীয় শ্রমিক লীগ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিদেশ সফর প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, এই সফরের গুরুত্ব যারা বুঝবে না তারাই এ সম্পর্কে কটাক্ষ করে। শেখ হাসিনা দেশ বিক্রি করতে বিদেশে যাননি, গিয়েছেন দেশের উন্নয়নের উচ্চতা বাড়াতে। পদ্মা সেতু নিয়ে বিশ্বব্যাংক নিজের ভুল স্বীকার করে তারা নিজেরাই প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে।

 

তিনি বলেন, শেখ হাসিনা সবসময় চান বাংলাদেশ কখনো যেন সংকটে না পড়ুক। এ দেশের মানুষের শান্তির জন্য শেখ হাসিনা বিদেশ সফর করছেন।

বিএনপির সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, পদ্মা সেতু, কর্ণফুলী টানেল, বিদ্যুৎ, মেট্টোরেলসহ আওয়ামী লীগের উন্নয়নে বিএনপি হিংসার আগুনে জ্বলে। মানুষ শান্তিতে থাকলে বিএনপির মনে কষ্ট হয়।

তিনি বলেন, বিএনপি ৫২ দল, ১২ দল নিয়ে ১০ দফা বিক্ষোভ পদযাত্রা, হোঁচট খাওয়া আন্দোলন করেছে। পদযাত্রার নামের শেষ যাত্রা করছে বিএনপি। বিএনপির আন্দোলন, দফা, দল সবই ভুয়া। বিএনপি পথ হারা, দিশেহারা ফান্দে পড়িয়া বগা কান্দের মতো দশা। বিএনপি রাজনীতিতে পরাজিত হয়ে গেছে, আন্দোলনে পরাজিত, নির্বাচনে আসলেও পরাজিত হবে।

 

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, বিএনপি রাজনীতিতে পরাজিত হয়ে এখন দেশের অর্থনীতিকে পরাজিত করার টার্গেটে নেমেছে। প্রহসনের নির্বাচনে এদেশের মানুষ আর ফিরে যাবে না। এদেশের মানুষ অর্থপাচারকারী তারেক রহমানদের হাতে দেশের ক্ষমতা তুলে দেবে না।

এ সময় তিনি দলের নেতাকর্মীদের মানুষের সঙ্গে ভালো আচরণ করার আহ্বান জানান। ওবায়দুল কাদের বলেন, ভালো আচরণ করলে এ দেশের জনগণ ব্যালটের মাধ্যমে প্রতিবাদ জানাবে।

দলীয় মনোনয়নের বিষয়ে ক্ষমতাসীন দলের এই নেতা বলেন, জনগণের কাছে গ্রহণযোগ্যতা নেই এমন কাউকে মনোনয়ন দেওয়া হবে না। অর্থ পাচারকারীদের আওয়ামী লীগে স্থান নেই।

 

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি মো. নূর কুতুব আলম। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আযম খসরুর সঞ্চালনায় এতে আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগ ও শ্রমিক লীগের নেতারা।

এসইউজে/কেএসআর/এএসএম jn24

Leave A Reply

Your email address will not be published.