ইসির কথার কোনো মিল নেই: তথ্যমন্ত্রী

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) কথার কোনো মিল নেই। নির্বাচন কমিশন সকালে এক কথা বিকালে আরেক কথা বলে। আবার তারা কথা বলে প্রত্যাহার করেও নেয়। তাই তাদের কথা নিয়ে মন্তব্য করা কঠিন। এমন কথা বলেছেন তথ্য ‍সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

0 10,002

সোমবার (১৮ জুলাই) সবিচালয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, সব সংসদীয় গণতন্ত্রের দেশে যেভাবে নির্বাচন হয় সেভাবেই নির্বাচন হবে দেশে। বিএনপির তত্ত্বাবধায়ক সরকারের স্লোগান তুলে কোনো লাভ নেই। সরকার নির্বাচনকালীন সরকারের দায়িত্বে থাকবে।

এ সময় প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়ালের বক্তব্যেরও সমালোচনা করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, সিইসির বক্তব্য সকালে এক, বিকেলে আরেক। তার বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিতে পারব না।

এদিকে সকালে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল জানিয়েছেন, বিএনপি-আওয়ামী লীগের সঙ্গে সমঝোতা কিংবা নিজ ক্ষমতায় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন করতে পারলে কমিশনের আপত্তি নেই। প্রয়োজনে নিজেরাই সরে যাবেন। রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে রাজনৈতিক দলের সঙ্গে দ্বিতীয় দিনের সংলাপে তিনি একথা বলেন।

সূচনা বক্তব্যে সিইসি আরও বলেন, সরকার নয়, জাতীয় নির্বাচন হবে কমিশনের অধীনে। তবে রাজনৈতিক দলগুলো নিজেরাই আলোচনা করে ঐক্যমতে পৌঁছালে ইসির কাজ সহজ হয়ে যাবে। আমরা চাই গ্রহণযোগ্য নির্বাচন। অনুকূল পরিবেশ ও সমতল ভিত্তি তৈরি করতে চাই। প্রয়োজনে আমরা নিজেরাই সরে যাব। দায়িত্ব ছেড়ে দিয়ে পথ সুগম করে দেব।

সিইসি বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট ছাড়াও সংলাপে বসছে বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তিজোট, খেলাফত মজলিস এবং বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির নেতারা।

আগামী ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে সংলাপে অংশ নিতে আওয়ামী লীগ, বিএনপিসহ ৩৯টি নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.