উপজেলায় বিশেষায়িত চিকিৎসা সেবা দেয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী

জনসংখ্যার প্রবল চাপ সত্ত্বেও চিকিৎসকদের সঠিক ও মানসম্মত সেবা নিশ্চিত করতে হবে হবে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

0 12,943

সোমবার (৬ জুন) গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি মহাখালীর বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ানস অ্যান্ড সার্জনস (বিসিপিএস)-এর সুবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন তিনি।


প্রধানমন্ত্রী বলেন, উপজেলা পর্যায়ে বিশেষায়িত চিকিৎসা ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে চায় সরকার। তাই প্রত্যন্ত অঞ্চলে চিকিৎসকদের দায়িত্বে কোনো অবহেলা করা যাবে না। রোগীর চাপ থাকলেও সঠিক ও মানসম্মত সেবা নিশ্চিত করতে হবে।
যথাযথ রোগ নির্ণয় করার জন্য চিকিৎসকদের গুরুত্ব দেয়ার অনুরোধ করেন সরকার প্রধান। রোগীর আত্মবিশ্বাস সৃষ্টিতে চিকিৎসক বড় ভূমিকা পালন করে বলে মনে করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘আপনারা মানুষের সেবা দেন। যখন একজন রোগী ডাক্তারের কাছে যায় তখন চিকিৎসা, ওষুধের থেকেও ডাক্তারের দুটো কথা সেটাও কিন্তু মানুষকে অনেক ক্ষেত্রে সুস্থ করে বা তাদের ভেতরে একটা আত্মবিশ্বাস সৃষ্টি করে। সেই বিষয়টার দিকেও একটু বিশেষভাবে দৃষ্টি দিতে হবে।’

‘বলা হয় চিকিৎসক নেই, চিকিৎসক সংকট। করোনার সময় আমরা অনেক চিকিৎসক নিয়োগ দিয়েছি। এখন আগের মতো সংকট থাকার কথা নয়। সামনেও চিকিৎসক নিয়োগের প্রক্রিয়া চলছে।’


তিনি বলেন, ‘উপজেলা পর্যায়ে চিকিৎসকরা থাকতে চায় না। তাহলে গ্রামের মানুষ সেবা পাবে কোথায়? এখন উপজেলা পর্যায়ে সব সুযোগ-সুবিধাই দেয়া হচ্ছে। তবুও কোথাও কোথাও চিকিৎসকদের খুঁজে না পাওয়ার অভিযোগ আসে। এই সংস্কৃতি পরিবর্তন করতে হবে।’

এ সময় স্বাস্থ্যবিষয়ক গবেষণা আরও বাড়ানোর ওপর জোর দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘স্বাস্থ্য খাতে আমাদের গবেষণা ব্যয় আগের তুলনায় অনেক বেড়েছে। এখন এ খাতে বাজেটও বেশি বরাদ্দ দেয়া হচ্ছে। করোনার সময়ও বিদেশি রাষ্ট্রের ওপর আমাদের কম নির্ভর করতে হয়েছে।’ গবেষণা কাজ ভালো হলে একটা সময় আমরা নিজেরাই স্বয়ংসম্পূর্ণ হতে পারব বলেও মনে করেন রাষ্ট্রপ্রধান।
Leave A Reply

Your email address will not be published.