বছরে ১৯ কোটি টিকা পেয়েছে বাংলাদেশ: ইউনিসেফ

বাংলাদেশ এক বছরে ১৯ কোটি টিকা পেয়েছে। কোভ্যাক্সের আওতায় এসব টিকা সরবরাহ করে জাতিসংঘের শিশু তহবিল ইউনিসেফ। সংস্থাটির তথ্যমতে, এখন পর্যন্ত কোভ্যাক্সের আওতায় সবচেয়ে বেশি টিকা পেয়েছে বাংলাদেশ।

0 9,072

মঙ্গলবার (৩১ মে) ইউনিসেফের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত যত করোনার টিকা পেয়েছে, তার ৬২ শতাংশের বেশি পেয়েছে কোভ্যাক্সের মাধ্যমে।

কোভ্যাক্স হচ্ছে এপিডেমিক প্রিপেয়ার্ডনেস ইনোভেশন, ভ্যাকসিন অ্যালায়েন্স-গাভি ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নেতৃত্বাধীন একটি বৈশ্বিক উদ্যোগ।

করোনা মহামারি শুরু হওয়ার পর বিশ্বের নিম্ন ও মধ্যম আয়ের দেশগুলোতে টিকা সরবরাহে এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। এর আওতায় টিকা পৌঁছে দেওয়ার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে ইউনিসেফ।

দেশে ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে করোনার টিকাদান শুরু হয়। ইউনিসেফ বাংলাদেশে প্রথম কোভ্যাক্সের টিকা সরবরাহ করে ২০২১ সালের ১ জুন। এমন একসময়ে এই টিকা সরবরাহ করা হয়, যখন দেশের মাত্র ৪ শতাংশ জনগোষ্ঠী সম্পূর্ণরূপে টিকা পেয়েছিল। এক বছর পর সরকার, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও অন্যান্য অংশীদারের মধ্যে একটি শক্তিশালী অংশীদারত্বের কল্যাণে বাংলাদেশ ১১ কোটি ৭০ লাখ মানুষকে দুই ডোজ টিকা দিতে সক্ষম হয়েছে, যা দেশটির মোট জনসংখ্যার ৬৯ শতাংশ।

আরও পড়ুন:  সপ্তাহব্যাপী দেয়া হবে বুস্টার ডোজ, তারিখ ঘোষণা

ইউনিসেফ জানিয়েছে, টিকা ব্যবস্থাপনায় কোল্ড চেইন এবং আলট্রা-কোল্ড চেইন ব্যবস্থা শক্তিশালী করা, গুরুত্বপূর্ণ সরবরাহ পৌঁছে দেওয়া, চাহিদা তৈরি করা, উপাত্ত ব্যবস্থাপনায় সহায়তা প্রদান এবং টিকাদানের জন্য সক্ষমতা বাড়ানোর মাধ্যমেও তারা সরকারের কোভিড-১৯ মোকাবিলা কার্যক্রমে সহায়তা দিয়েছে। এ বিনিয়োগগুলো কোভিড-১৯ সংকটের পর সামনের বছরগুলোতেও বাংলাদেশের মানুষকে অব্যাহতভাবে সেবা দিয়ে যাবে। এগুলো শিশুদের জন্য বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ, যারা হাম ও পোলিওর মতো প্রাণঘাতী রোগপ্রতিরোধে টিকা নিয়েছে।

বাংলাদেশে ইউনিসেফের প্রতিনিধি শেলডন ইয়েট বলেন, রাজনৈতিক প্রতিশ্রুতি এবং টিকার ন্যায়ভিত্তিক সরবরাহ বজায় থাকলে কী অর্জন করা যেতে পারে, বাংলাদেশের কোভিড-১৯ টিকা গ্রহণ এবং টিকাদান অব্যাহত রাখার সক্ষমতাই তার প্রমাণ। দ্রুততার সঙ্গে এবং নিরাপদে দেশের প্রতিটি কোনায় কোনায় লাখ লাখ মানুষের হাতে টিকা প্রয়োগ অসম্ভবের চেয়ে কম কিছু নয়।


জুনে করোনা টিকার বুস্টার ডোজ দেওয়ার একটি ক্যাম্পেইন পরিচালনার পরিকল্পনা করা হয়েছে বলে ইউনিসেফ জানিয়েছে।

বাংলাদেশে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিনিধি বারদান জং রানা জানিয়েছেন, আগামী জুনের মধ্যে ৭০ শতাংশ জনগোষ্ঠীকে টিকাদানের যে বৈশ্বিক টার্গেট, তা অর্জনের খুব কাছাকাছি অবস্থান করছে বাংলাদেশ। কোভ্যাক্সের সহায়তা ছাড়া এই সাফল্য সম্ভব হতো না। 
Leave A Reply

Your email address will not be published.