হাইকোর্টের কার্যতালিকা থেকে বাদ নর্থ সাউথের ৪ ট্রাস্টির জামিন শুনানি

অর্থ আত্মসাৎ মামলায় নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক চার ট্রাস্টির জামিন আবেদনের ওপর জারি করা রুলের বিষয়ে শুনানি কার্যতালিকা (কজলিস্ট) থেকে বাদ দিয়েছেন হাইকোর্ট। ওই চার সাবেক ট্রাস্টি হলেন: রেহানা রহমান, এম এ কাশেম, মোহাম্মদ শাহজাহান ও বেনজীর আহমেদ।

0 15,724

বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) হাইকোর্টের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি খিজির হায়াতের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

এদিন আদালতে রাষ্ট্রপক্ষের শুনানিতে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক। তার সঙ্গে ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল আন্না খানম কলী। অন্যদিকে, আসামিদের পক্ষে ছিলেন সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট সাঈদ আহমেদ রাজা।

অর্থ আত্মসাৎ মামলায় নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি এমএ কাশেম ও রেহেনা রহমানের জামিন আবেদনের ওপর শুনানি হয় গত ১৭ আগস্ট। সেদিন রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদকের সময় আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চ এ বিষয়ে শুনানির জন্য ২৮ আগস্ট দিন নির্ধারণ করেন। তারই ধারাবাহিকতায় আজ এটি শুনানির জন্য ওঠে।

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ট্রাস্টি এম এ কাশেম ও রেহেনা রহমানের জামিন শুনানি পেছানোর বিষয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুর্টি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক ওইদিন সাংবাদিকদের জানান, তাদের জামিন শুনানির সময় জঙ্গিবাদের সংশ্লিষ্টতার বিষয় ও চারজন ট্রাস্টির জামিন শুনানি একসঙ্গে শুনানির বিষয় উল্লেখ করে রাষ্ট্র ও দুদক সময়ের আবেদন করে। এরপর আদালত এ সময় দেন। ২৮ আগস্ট চার ট্রাস্টির জামিন একসঙ্গে শুনানি হবে। এর আগে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় তাদের পক্ষে জামিন আবেদন করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট শাহ মুঞ্জুরুল হক।

অন্যদিকে, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য দুই ট্রাস্টি রেহানা রহমান ও এম এ কাশেমের জামিন বিষয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্টের একই বেঞ্চ। গত ২ আগস্ট একই আদালতে প্রাথমিক শুনানি নিয়ে তাদের দুজনকে কেন জামিন দেয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন আদালত।

এর আগে ২৩ মে বিশ্ববিদ্যালয়ের জমি কেনা বাবদ অতিরিক্ত ৩০৩ কোটি ৮২ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে করা মামলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চার সদস্যকে কারাগারে পাঠান আদালত। সেই সঙ্গে তদন্ত কর্মকর্তার আবেদনে আসামিদের সাত কার্যদিবসের মধ্যে কারাফটকে জিজ্ঞাসাবাদেরও অনুমতি দেন বিচারক।

গত ২৩ মে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েস দুদকের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এ নির্দেশ দেন। দুপুর ১টা ৩৫ মিনিটের দিকে আদালতে হাজির করা হয় তাদের। এরপর দুদক তাদের জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আবেদন করে।

অপরদিকে আসামিপক্ষের আইনজীবীরা কারাগারে প্রথম শ্রেণির ডিভিশন চেয়ে আবেদন জানান। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে বিচারক তাদের সাত কার্যদিবসের মধ্যে এক দিন জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দেন।

এ ছাড়া কারাবিধি অনুযায়ী তাদের ডিভিশন দেয়ার জন্য কারা কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন। তাদের আগাম জামিনের আবেদন খারিজ করেন বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের বেঞ্চ। একই সঙ্গে তাদের গ্রেফতার করে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে নিম্ন আদালতে হাজির করতে শাহবাগ থানা পুলিশকে নির্দেশ দেন। পরে তাদের শাহবাগ থানা হেফাজতে পাঠানো হয়। রাত সাড়ে ১১টার দিকে শাহবাগ থানায় হস্তান্তর করা হয় তাদের।

ওই সময় শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মওদুদ হাওলাদার সময় সংবাদকে জানান, আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী আসামিদের থানাহাজতে রাখা হয়। তারপর আসামিদের সংশ্লিষ্ট আদালতে হাজির করা হয়।

আদালতে আসামি এম এ কাশেম ও  রেহানা রহমানের পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী আজমালুল হোসেন কিউসি, বেনজীর আহমেদের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ এফ হাসান আরিফ এবং শাহজাহানের পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ফিদা এম কামাল। এ ছাড়া তাদের সহযোগিতা করেন আইনজীবী মিজান সাঈদ।

অন্যদিকে শুনানিতে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পক্ষে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ এবং এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক।

গত ১২ মে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের জমি কেনা বাবদ অতিরিক্ত ৩০৩ কোটি ৮২ লাখ ১৩ হাজার ৪৯৭ টাকা ব্যয় দেখিয়ে তা আত্মসাতের অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন দুদকের উপপরিচালক মো. ফরিদ আহমেদ পাটোয়ারী।

মামলার আসামিরা হলেন: নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান আজিম উদ্দিন আহমেদ, বোর্ডের চার সদস্য এম এ কাশেম, বেনজীর আহমেদ, রেহানা রহমান, মোহাম্মদ শাহজাহান এবং আশালয় হাউজিং অ্যান্ড ডেভেলপার্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আমিন মো. হিলালী।

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন-২০১০ অনুযায়ী নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি পরিচালনার সর্বোচ্চ কর্তৃপক্ষ বোর্ড অব ট্রাস্টিজ। বিশ্ববিদ্যালয়ের মেমোরেন্ডাম অব অ্যাসোসিয়েশন অ্যান্ড আর্টিকেলস (রুলস অ্যান্ড রেগুলেশনস) অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয় একটি দাতব্য, কল্যাণমুখী, অবাণিজ্যিক ও অলাভজনক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

Leave A Reply

Your email address will not be published.