সরকারের ধারাবাহিতার সুফল পাচ্ছে দেশ: প্রধানমন্ত্রী

শত প্রতিকূলতার মধ্যদিয়ে দেশ উন্নয়নের যে পর্যায়ে পৌঁছেছে, সেই ধারা বজায় রাখার ওপর গুরুত্বারোপ করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একনেক সভার সূচনা বক্তব্যে তিনি বলেন, টানা তিন মেয়াদে গণতান্ত্রিক সরকারের ধারাবাহিতার সুফল পাচ্ছে দেশ। সরকার প্রধান বলেন, জনগণের আস্থা আছে বলেই অগ্রযাত্রার এই ধারা অর্জন সম্ভব হয়েছে।

0 15,826

শোকের মাস আগস্টে প্রথম একনেক বৈঠক। মঙ্গলবার (২ আগস্ট) রাজধানীর শেরে-বাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির এ সভায় গণভবন থেকে অনলাইনে যুক্ত হয়ে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, আমাদের প্রতি যে অবিচার করা হয়েছে, যেভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘন হয়েছিল। আমি জানি না কেউ এটা স্মরণ করে কিনা।

সূচনা বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী আগস্ট ট্যাজেডির প্রসঙ্গ টেনে বলেন, সব হারিয়ে শুধু দেশের মানুষের ভাগ্যোন্নয়নের জন্যই তার সব প্রচেষ্টা।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ আজকে একটা স্থানে চলে এসেছে। একটানা সরকারে থাকার ফলে এবং গণতান্ত্রিকভাবে আমরা নির্বাচিত হয়ে এসেছি। জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়ে সরকারে এসেছি। তাই জনগণের আস্থা বিশ্বাস আমাদের ওপর যেমন রয়েছে, তেমনি আমারও জনগণের ওপর আস্থা বিশ্বাস রয়েছে। যে কারণে আমরা কাজ করতে পেরেছি এবং আজকের বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছে।

তিনি জানান, শত প্রতিকূলতা ডিঙিয়ে অর্জিত উন্নয়ন ও সক্ষমতার স্তর ধরে রাখতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমরা সবক্ষেত্রেই কিন্তু যথেষ্ট সাফল্য অর্জন করতে পেরেছি। অনেক ঘাতপ্রতিঘাতের মধ্য দিয়ে আমরা একটা জায়গায় আসতে পেরেছি। এ ধারাটা যেন অব্যাহত থাকে। হয়তো আমি থাকব না, কিন্তু বাংলাদেশের উন্নয়নের অগ্রযাত্রা ব্যাহত না হয় সেটাই আমি চাই।’

দেশের বর্তমান অর্জনের পেছনে পরিকল্পনা কমিশনের কার্যকর ভূমিকার জন্য ধন্যবাদ জানান একনেক সভাপতি। বলেন, জনসমর্থন আর আস্থার ওপর ভর করেই কাজ করছে আওয়ামী লীগ সরকার।

তিনি আরও বলেন, ‘আমার আর কোনো সম্পদ ছিল না। একটাই ছিল জনগণ ও জনগণের বিশ্বাস-আস্থা। সেটাকেই মূলধন করে আমি এগিয়ে যাবার চেষ্টা করেছি।’

Leave A Reply

Your email address will not be published.