র‍্যাঙ্কিংয়ে আরও এগোচ্ছে অপ্রতিরোধ্য আর্জেন্টিনা

দিনে দিনে অপ্রতিরোধ্য হয়ে ওঠছে আর্জেন্টিনা। গত বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বেই বাদ পড়ার শঙ্কায় থাকা দলটি ২০১৯ সালে কোপা আমেরিকার সেমিফাইনালের পর আর হারের মুখ দেখেনি। পারফরম্যান্সের ঊর্ধ্বগতির প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে র‍্যাংকিংয়েও। তরতর করে ওপরে ওঠে আসছে আলবিসেলেস্তেরা। বিশ্বকাপের প্রাক্বালে আর্জেন্টিনা সমর্থকদের জন্য আসছে সুখবর। আসন্ন র‍্যাঙ্কিংয়ে আর একধাপ এগুচ্ছে আর্জেন্টিনা।

0 13,019

ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ের মাসিক হালনাগদ অনুযায়ী আগামী সপ্তাহে ঘোষণা করা হবে নতুন র‍্যাঙ্কিং। লা ফিনালিসিমায় ইতালিকে ওড়িয়ে দেয়া আর্জেন্টিনা প্রীতি ম্যাচে ৫-০ গোলে ওড়িয়ে দিয়েছে এস্তোনিয়াকেও। সে ম্যাচে একাই পাঁচ গোল করেন অধিনায়ক লিওনেল মেসি। ফিফা উইন্ডোতে এমন জাদুকরি ফুটবলের পুরস্কার পেতে যাচ্ছে আলবিসেলেস্তেরা। ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে একধাপ এগুচ্ছে আকাশি-সাদা জার্সিধারীরা। বর্তমানে চার নম্বরে থাকা আর্জেন্টিনা নতুন র‍্যাংকিংয়ে ওঠে আসছে তৃতীয় স্থানে। আর্জেন্টিনাভিত্তিক স্পোর্টস অনলাইন টিওয়াইসি স্পোর্টস আগাম জানিয়েছে এ খবর।

বর্তমান র‍্যাঙ্কিং অনুযায়ী শীর্ষ দল ব্রাজিল। সেরা তিনে আরও আছে বেলজিয়াম ও ফ্রান্স। আর্জেন্টিনার দারুণ পারফরম্যান্সের বিপরীতে উয়েফা নেশন্স লিগে ফ্রান্সের বাজে পারফরম্যান্স র‍্যাঙ্কিংয়ে আর্জেন্টিনার এগিয়ে আসার কারণ। নেশন্স লিগে এখন পর্যন্ত জয়হীন গত আসরের চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স। তবে বেলজিয়াম ও শীর্ষে থাকা ব্রাজিলের অবস্থানের পরিবর্তন হচ্ছে না। আর্জেন্টিনাকে সেরা পাঁচে শুধু আর্জেন্টিনা ও ফ্রান্সের মধ্যেই জায়গার অদলবদল হচ্ছে।

আর্জেন্টিনা যে শুধু তিন নম্বরে ওঠছে তাই নয়, বাড়ছে তাদের রেটিং পয়েন্টও। পয়েন্ট বাড়ায় তাদের সঙ্গে ব্যবধান কমে আসছে শীর্ষে থাকা চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলের।

২০১৯ সালে কোপা আমেরিকার সেমিফাইনালে ব্রাজিলের বিপক্ষে হারের পর থেকে টানা ৩৩ ম্যাচে অপরাজিত লিওনেল স্কলানির আর্জেন্টিনা। টানা সবচেয়ে বেশি ম্যাচ অপরাজিত থাকার রেকর্ড নিজেদের করে নিতে আরও ৫ ম্যাচ অপরাজিত থাকতে হবে তাদের। ২০১১৮-২১ পর্যন্ত টানা ৩৭ ম্যাচ অপরাজিত থাকার রেকর্ড ২০১৮ ও ২০২২ বিশ্বকাপে সুযোগ না পাওয়া ইতালির।

প্রকাশিতব্য র‍্যাঙ্কিং অনুযায়ী শীর্ষ ১০ দলঃ

১. ব্রাজিল, রেটিং পয়েন্ট: ১৮৩৮

২. বেলজিয়াম, রেটিং পয়েন্ট: ১৮২২

৩. আর্জেন্টিনা, রেটিং পয়েন্ট: ১৭৮৪

৪. ফ্রান্স, রেটিং পয়েন্ট: ১৭৬৫

৫. ইংল্যান্ড, রেটিং পয়েন্ট: ১৭৩৮

৬. ইতালি, রেটিং পয়েন্ট: ১৭১৮

৭. স্পেন, রেটিং পয়েন্ট: ১৭১৭

৮. নেদারল্যান্ডস, রেটিং পয়েন্ট: ১৬৭৯

৯. পর্তুগাল, রেটিং পয়েন্ট: ১৬৭৯

১০. ডেনমার্ক, রেটিং পয়েন্ট: ১৬৬৫

Leave A Reply

Your email address will not be published.