নারী খেলোয়াড়দের আরও সুযোগ দিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিভিন্ন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় নারী খেলোয়াড়রাও বেশ ভালো করছে, তাদের আরও সুযোগ দিতে হবে।

0 14,652

বুধবার (১১ মে) সকালে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি উপস্থিত থেকে পুরস্কার বিতরণ করেন প্রধানমন্ত্রী।

সরকার প্রধান বলেন, ২০১০ সালে এশিয়ান গেমসে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল প্রথমবারের মতো স্বর্ণপদক জয়ী হয়। ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার অবিশ্বাস্য গৌরব অর্জন করে। ২০২১ সালের জানুয়ারিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ৩-০ ব্যবধানে এবং মে মাসে শ্রীলঙ্কাকে ২-১ ব্যবধানে হারিয়ে বিশ্বকাপ সুপারলিগের পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষস্থান অর্জন করে বাংলাদেশ। ২০২১ সালের জুলাই মাসে জিম্বাবুয়ের মাটিতে প্রথমবারের মতো টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ জেতার অবিস্মরণীয় গৌরব অর্জন করেছে বাংলাদেশ।

তিনি বলেন, গত বছর দেশের মাটিতে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি সিরিজে আমাদের ক্রিকেট দল বিশ্ব ক্রিকেটের পরাশক্তি অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৪-১ ব্যবধানে ঐতিহাসিক সিরিজ জয় লাভ করে। একই বছরের সেপ্টেম্বরে আমাদের সোনার ছেলেরা দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখিয়ে দেশের মাটিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৫ ম্যাচের সিরিজে প্রথমবারের মতো জয়লাভ করে অনন্য ইতিহাস সৃষ্টি করে। ২০২২ সালের জানুয়ারিতে বাংলাদেশ স্বাগতিক নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো টেস্ট জয়েরও অনন্য ইতিহাস সৃষ্টি করে। এ বছর মার্চে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে প্রথমবারের মতো ওয়ানডে সিরিজ জয়লাভ করে অবিস্মরণীয় গৌরব অর্জন করে।

‘কাজেই এ ক্ষেত্রে আমরা যথেষ্ট এগিয়েছি। আমাদের মেয়েরা কিন্তু পিছিয়ে নেই। মেয়েদের খেলাধুলা যখন প্রথম ৯৬ সালে শুরু করি তখন কিছু কিছু প্রতিবন্ধকতা এসেছিল। আমরা সেগুলো এখন কাটিয়ে উঠেছি। ২০১৮ সালের অক্টোবরে সাফ অনূর্ধ্ব-১৮ ফুটবলে নারী ফুটবল দল চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে। ২০২১ সালে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল টেস্ট স্ট্যাটাস পেয়েছে। এছাড়াও বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল প্রথমবারের মতো ওয়ানডে বিশ্বকাপে অংশ নিয়ে পাকিস্তানকে পরাজিত করেছে। ২০২১ সালের ডিসেম্বরে সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ ফুটবল প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ নারী ফুটবল দল চ্যাম্পিয়ন হয়ে ক্রীড়াঙ্গনে দেশ ও জাতিকে গৌরবান্বিত করেছে। আমার মনে হয় আমাদের স্পোর্টস মিনিস্টারকে বলতে পারি, ক্রিকেট, ফুটবলে সবক্ষেত্রেই আমাদের নারীরা অনেক পারদর্শিতা দেখাতে পারছে। তাদেরকে একটু বেশি করে সুযোগ দিতে হবে এবং আরও উৎসাহিত করতে হবে। কারণ কামালের স্ত্রী সুলতানা কামাল সে কিন্তু পাকিস্তান এবং বাংলাদেশের চ্যাম্পিয়ন অ্যাথলেট ছিল,’ বলেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী খেলোয়াড়দের পাশাপাশি সংগঠকদের উৎসাহিত করতে এবং খেলাধুলার সার্বিক অগ্রগতির জন্য প্রতি বছর পুরস্কার প্রদানের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল প্রাপকদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন এবং অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।

এসময় মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আব্দুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব উপস্থিত ছিলেন এবং স্বাগত বক্তব্য দেন মন্ত্রণালয়ের সচিব মেসবাহ উদ্দিন।

অনুষ্ঠানে খেলাধুলার উন্নয়নের ওপর একটি ভিডিও ডকুমেন্টারি প্রদর্শন করা হয়।


ক্রীড়াক্ষেত্রে গৌরবোজ্জ্বল অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে ২০১৩ হতে ২০২০ সাল পর্যন্ত ৮৫ জন কৃতী ক্রীড়াবিদ ও ক্রীড়া সংগঠককে জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার দেওয়ার জন্য মনোনীত করা হয়। পুরস্কারপ্রাপ্ত প্রত্যেকে পাচ্ছেন- একটি ১৮ ক্যারেট মানের ২৫ গ্রাম ওজনের স্বর্ণপদক, এক লাখ টাকার চেক এবং সম্মাননাপত্র।
 
এবার যারা পুরস্কার পেলেন তারা হলেন:

জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার ২০২০


১. বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ লেফটেন্যান্ট শেখ জামাল (মরণোত্তর), ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় ও সংগঠক
২. বীর মুক্তিযোদ্ধা আফজালুর রহমান সিনহা (মরণোত্তর), ক্যাটাগরি – সংগঠক (ক্রিকেট)
৩. নাজমুল আবেদীন (ফাহিম), ক্যাটাগরি – সংগঠক (ক্রিকেট কোচ)
৪. মো. মহসীন, ক্যাটাগরি- খেলোয়াড় (ফুটবল)
৫. মো. মাহাবুবুল এহছান রানা, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (হকি)
৬. গ্র্যান্ডমাস্টার মোল্লা আব্দুল্লাহ আল রাকিব, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (দাবা)
৭. বেগম মোছা: নিলুফা ইয়াসমিন, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স)
৮. আব্দুল কাদের স্বরণ, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ব্যাডমিন্টন – বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী)
৯. তানভীর মাজহার তান্না, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ফুটবল)
১০. মৃত অরুন চন্দ্র চাকমা, ক্যাটাগরি – সংগঠক (অ্যাথলেটিক্স) (মরণোত্তর)
১১. লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মো. মইনুল ইসলাম, ক্যাটাগরি – সংগঠক (আরচারি)
১২. দিপু রায় চৌধুরী, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ক্রিকেট)
১৩. কাজী নাবিল আহমেদ, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ফুটবল)
১৪. ইন্তেখাবুল হামিদ, ক্যাটাগরি – সংগঠক (শ্যুটিং)
১৫. বেগম মাহফুজা রহমান তানিয়া, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (সাঁতার)
১৬. বেগম ফারহানা সুলতানা (শীলা), ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (সাইক্লিং)
১৭. টুটুল কুমার নাগ, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (হকি)
১৮. মাহবুবুর রব, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ব্যাডমিন্টন)
১৯. বেগম সাদিয়া আক্তার উর্মি, ক্যাটাগরি  – খেলোয়াড়  (টেবিল  টনিস – বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী)
২০. ফরিদা আক্তার বেগম, ক্যাটাগরি – সংগঠক (অ্যাথলেটিক্স)
২১. জ্যোৎস্না আফরোজ, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স)
২২. মো. রফিক উল্যা আখতার (মিলন), ক্যাটাগরি – সংগঠক (অ্যাথলেটিক্স)
২৩. কাজী আনোয়ার হোসেন, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ফুটবল)
২৪. মো. শওকত আলী খান (জাহাঙ্গীর), ক্যাটাগরি – সংগঠক (ফুটবল)
২৫. মীর রবিউজ্জামান, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (জিমন্যাস্টিকস)
২৬. মোহাম্মদ আলমগীর আলম, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (হকি)
২৭. তৈয়েব হাসান সামছুজ্জামান, ক্যাটাগরি – সংগঠক (রেফারী)
২৮. নিবেদিতা দাস, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (সাঁতার)
২৯. মাহমুদুল ইসলাম রানা, ক্যাটাগরি – সংগঠক (তায়কোয়ানডো)
৩০. শাহরিয়া সুলতানা, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ভারোত্তোলন)
৩১. আওলাদ হোসেন, ক্যাটাগরি – সংগঠক ( জুডো, কারাতে ও মার্শাল আর্ট)
৩২. ওয়াসিফ আলী, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (বাস্কেটবল)
৩৩. শেখ বশির আহমেদ (মামুন), ক্যাটাগরি – সংগঠক (জিমন্যাস্টিকস)
৩৪. মো. সেলিম মিয়া, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (সাঁতার)
৩৫. হাজী মো. খোরশেদ আলম, ক্যাটাগরি – সংগঠক (রোইং)
৩৬. আবু ইউসুফ, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ফুটবল)
৩৭. এ. টি. এম. শামসুল আলম, ক্যাটাগরি – সংগঠক (টেবিল টেনিস)
৩৮. রহিমা খানম যুথী, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক)
৩৯. আসাদুজ্জামান কোহিনুর, ক্যাটাগরি – সংগঠক (হ্যান্ডবল) এবং
৪০. মো. মাহবুব হারুন, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (হকি) সহ মোট ৮৫ জন।
 
জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার- ২০১৬
(৪১) মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (সাঁতার)
(৪২) লে. কমান্ডার এ কে সরকার (অব.), ক্যাটাগরি – সংগঠক (বাস্কেটবল)
(৪৩) বেগম সুলতানা পারভীন লাভলী, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স)
(৪৪) বীর মুক্তিযোদ্ধা শামীম-আল-মামুন, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ভলিবল)
(৪৫) আরিফ খান জয়, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ফুটবল)
(৪৬) খন্দকার রকিবুল ইসলাম, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ফুটবল)
(৪৭) মোহাম্মদ জালাল ইউনুস, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ক্রিকেট)
(৪৮) মো. তোফাজ্জল হোসেন, ক্যাটাগরি – সংগঠক (অ্যাথলেটিক্স)
(৪৯) কাজল দত্ত, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ভরোত্তোলন)
(৫০) মো. তাবিউর রহমান পালোয়ান, ক্যাটাগরি – সংগঠক (কুস্তি)
(৫১) জেড. আলম, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ফুটবল ) (মরণোত্তর)
(৫২) আবদুর রাজ্জাক (সোনা মিয়া), ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (হকি) (মরণোত্তর)
(৫৩) কাজী হাবিবুল বাশার, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ক্রিকেট)
 
জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার- ২০১৫
(৫৪) অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ক্যারম)
(৫৫) মো. আহমেদুর রহমান, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় ও সংগঠক (জিমন্যাস্টিক্স)
(৫৬) আহমেদ সাজ্জাদুল আলম, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ক্রিকেট)
(৫৭) খাজা রহমতউল্লাহ, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (হকি) (মরণোত্তর)
(৫৮) মাহ্‌তাবুর রহমান বুলবুল, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় ও সংগঠক (বাস্কেটবল)
(৫৯) বেগম ফারহাদ জেসমীন লিটি, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স)
(৬০) বরুন বিকাশ দেওয়ান, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ফুটবল)
(৬১) রেহানা জামান, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (সাঁতার)
(৬২) মো. জুয়েল রানা, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ফুটবল)
(৬৩) বেগম জেসমিন আক্তার, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ভারোত্তোলন, কারাতে ও তায়কোয়ানডো)
(৬৪) বেগম শিউলী আক্তার সাথী, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ব্যাডমিন্টন)
 
জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার- ২০১৪
(৬৫) শামসুল বারী, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় ও সংগঠক (হকি) (মরণোত্তর)
(৬৬) এনায়েত হোসেন সিরাজ, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ক্রিকেট)
(৬৭) মো. ফজলুর রহমান বাবুল, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ফুটবল)
(৬৮) সৈয়দ শাহেদ রেজা, ক্যাটাগরি – সংগঠক (হ্যান্ডবল)
(৬৯) মো. ইমতিয়াজ সুলতান জনি, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ফুটবল)
(৭০) মোহাম্মদ এহসান নামিম, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (হকি)
(৭১) বেগম কামরুন নেছা, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স)
(৭২) মো. সামছুল ইসলাম, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (সাঁতার)
(৭৩) মিউরেল গোমেজ, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স)
(৭৪) মো. জোবায়েদুর রহমান রানা, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ব্যাডমিন্টন)
জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার- ২০১৩
(৭৫) মুজাফ্‌ফর হোসেন পল্টু, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় ও সংগঠক (ক্রিকেট)
(৭৬) কাজী মাহতাব উদ্দিন আহমেদ, ক্যাটাগরি – সংগঠক (হ্যান্ডবল)
(৭৭) উইং কমান্ডার (অব.) মহিউদ্দিন আহমেদ, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ভারোত্তোলন)
(৭৮) সামশুল হক চৌধুরী, ক্যাটাগরি – সংগঠক (ফুটবল)
(৭৯) বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. শাহ্‌জাহান মিজি, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (সাঁতার)
(৮০) রোকেয়া বেগম খুকী, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স)
(৮১) বেগম মুনিরা মোর্শেদ খান (হেলেন), ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (টেবিল টেনিস)
(৮২) মো. ইলিয়াস হোসেন, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ফুটবল)
(৮৩) বেগম জ্যোৎস্না আক্তার, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (অ্যাথলেটিক্স)
(৮৪) ভোলা লাল চৌহান, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (স্কোয়াশ)
(৮৫) খালেদ মাহমুদ সুজন, ক্যাটাগরি – খেলোয়াড় (ক্রিকেট)
Leave A Reply

Your email address will not be published.