রাত থেকে ট্রেন বন্ধের আল্টিমেটাম

১০ জানুয়ারির মধ্যে বেতন-ভাতা সম্পূর্ণ প্রদান না করা হলে বাংলাদেশ রেলওয়ে রানিং ষ্টাফ ও শ্রমিক-কর্মচারি সমিতি রাত ১২টা থেকে ট্রেন চলাচল বন্ধের আল্টিমেটাম দিয়েছে।

0 7,906

রোববার (৯ জানুয়ারি) রাতে সমিতির সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।


রেলের রানিং স্টাফদের মধ্যে বিশেষ করে পশ্চিমাঞ্চল রেলের সকল শাখার লোকোমাস্টার ও সহকারী লোকোমাস্টাররা (ট্রেনচালক) দ্রুত দাবি বাস্তবায়নের জন্য হার্ডলাইনে অবস্থান করে ট্রেন চালনা বন্ধের আলটিমেটাম দিয়েছেন।

গত ৬ জানুয়ারি রেলের রানিং ষ্টাফরা ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাসের বেতন-ভাতা ১০ জানুয়ারির মধ্যে প্রদানের জন্য পশ্চিম রেলের পাকশী বিভাগীয় যন্ত্র প্রকৌশলীর (লোকো) এর নিকট লিখিত আবেদন জানান।

আবেদনে বলা হয়, লালমনিরহাট বিভাগের কিছু কিছু রানিং স্টাফদের নভেম্বরের নিয়মিত বেতন বিলের সাথে বাসা ভাড়া প্রদান করা হয়নি। বাজেটে অপ্রতুলতার অজুহাতে পাকশী বিভাগের রানিং ষ্টাফদের বেতন এখনও অনুমোদন না করায় তারা বিক্ষুব্ধ ও আতঙ্কিত। এ অবস্থায় ১০ জানুয়ারির মধ্যে সংস্থাপন কোড ও রানিং সেড ম্যানুয়েলের বিধি মোতাবেক অর্জিত মাইলেজ ও প্রাপ্য সকল ভাতাদি ডিসেম্বরের বেতন বিলে পরিশোধ না হলে ট্রেন চালনা হতে বিরত থাকবেন বলে জানানো হয়।

লিখিত বিবৃতিতে রানিং ষ্টাফরা আরও জানান, বেতন ব্যবস্থা আধুনিকায়ন করে ২০২০ এর জুলাই হতে পে অফিসের পরিবর্তে এখন ব্যাংকের মাধ্যমে বেতন প্রদান করা হচ্ছে। উদ্দেশ্য ছিল রেল কর্মচারীরা প্রতি মাসের ১ তারিখের মধ্যে বেতন পায়। কিন্তু এখন নির্ধরিত সময়ে বেতন না পাওয়ায় লোকোমাস্টাররা বিড়ম্বনার স্বীকার হচ্ছে। ট্রেন চলাচল বন্ধ হলে এর দায়ভার সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষকে বহন করতে হবে বলে ট্রেনচালক ও সহকারীরা জানিয়েছেন।

বাংলাদেশ রেলওয়ে রানিং স্টাফ ও কর্মচারী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মজিবর রহমান সময় সংবাদকে জানান, শ্রমিকদের বেতন ভাতা বকেয়া আছে এসব পরিশোধ না করলে রাত ১২টা থেকে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যাবে। এতে সারা দেশের সাথে পশ্চিমাঞ্চলের রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে পড়বে। অনেকদিন থেকে রেল প্রশাসনকে এসব কথা জানিয়ে আসলেও কোন সুরাহা না হওয়ায় এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা।

একই সংগঠনের সহসাধারণ সম্পাদক রবিউল ইসলাম বলেন, সোমবার মধ্য রাত থেকে পশ্চিমাঞ্চলে প্রবেশ করা কোন ট্রেনে আর হাত দিবেন না রেলের চালক, গার্ড ও টিকিট চেকাররা। রাত ১২ টা থেকেই ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যাবে। বেতন বকেয়া থাকায় তারা মানবেতর জীবনে পড়েছেন।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে রেলের ঊর্ধতন কর্মকর্তারা জানান, রানিং স্টাফদের সঙ্গে আলোচনা করা হচ্ছে। দ্রুতই সমস্যার সমাধান হবে বলে আশা তাদের। তবে বাজেট ঘাটতির কারনে বাসা ভাড়া ও অন্যান্য সুযোগ সুবিধা সময়মত প্রদান করা পশ্চিমাঞ্চলে সম্ভব হচ্ছে না বলেও জানান রেলকর্তারা।
Leave A Reply

Your email address will not be published.