দলত্যাগী আইনপ্রণেতাদের শাস্তি চেয়ে সুপ্রিম কোর্টে ইমরান খান

নিজ দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) ছেড়ে যাওয়া আইনপ্রণেতাদের শাস্তি চান পাকিস্তানের ক্ষমতাচ্যুত প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এজন্য সুপ্রিম কোর্টে ইতোমধ্যে একটি আবেদন করেছেন তিনি। সর্বোচ্চ আদালতের কাছে তার চাওয়া, দলত্যাগী আইনপ্রণেতাদের আজীবনের জন্য রাজনীতি ও নির্বাচনে অংশ নেওয়া থেকে নিষিদ্ধ করা হোক।

0 7,931

ডন জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার (১৪ এপ্রিল) সকালে এ মর্মে একটি পিটিশন পিটিআই আইনজীবী বাবর আওয়ানের মাধ্যমে দেশের সর্বোচ্চ আদালতে দাখিল করেছেন ইমরান খান। সেই সঙ্গে সংবিধানের ৬৩-এ ধারার অধীনে বিষয়টি শুনানির মাধ্যমে সিদ্ধান্ত জানানোর আবেদন জানিয়েছেন।

এ পিটিশনের মাধ্যমে নিজ দল পিটিআই’র ২০ জন দলত্যাগী সদস্যকে জাতীয় পরিষদ থেকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার চান ইমরান খান। পিটিশনে এর পক্ষে যুক্তি দেখিয়ে তিনি বলেছেন, দলত্যাগ সংবিধানের ৬৩-এ ধারার সঙ্গে সরাসরি সাংঘর্ষিক।

এই অবাধ্য সদস্যরা পিটিআই থেকে টিকিট নিয়ে জাতীয় পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হলেও তারা ইমরান খানের বিরুদ্ধে আনা অনাস্থা প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দিয়েছেন। পিটিশনে ইমরান খান বলেছেন, সংবিধান অনুযায়ী অবাধ্য ও দলত্যাগীদের প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ভোট বৈধ হবে না। ফলে তাদের ভোট বাতিল ঘোষণা করার আবেদন জানিয়েছেন তিনি।

এ ব্যাপারে ইমরান খান তার আবেদনে বলেছেন, একজন নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি সাংবিধানিকভাবে ও নৈতিকভাবে জাতীয় পরিষদের কোনো দলত্যাগ করতে পারেন না। ফলে তাদের ভোট দেওয়ার কোনো অধিকার নেই। তাদের ভোট গণনাও করা যাবে না।

ইমরান খান তার আবেদনে আরও জানিয়েছেন, মহামান্য সুপ্রিম কোর্ট আগেও জানিয়েছেন রাজনীতিতে দলত্যাগ করার বিষয়টি ক্যানসারের মতো। গণতান্ত্রিক সরকারের যে মৌলিকতা সেটিই ধ্বংস করে দলত্যাগ। ফলে এসব অবাধ্য ও দলত্যাগী সদস্যদের সংবিধানের ৬১(১)(এফ) ধারা অনুযায়ী আজীবনের জন্য বহিষ্কার করে সঠিক বিচার প্রদান করুন। 

Leave A Reply

Your email address will not be published.