গত সপ্তাহে মারা যাওয়াদের ৫৯ শতাংশ টিকা নেননি: স্বাস্থ্য অধিদফতর

গত এক সপ্তাহে (২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ৬ মার্চ) করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৫২ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর এ মারা যাওয়াদের ৫৯ দশমিক ৬ শতাংশ টিকার একটি ডোজও নেননি বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

0 16,894

সোমবার (৭ মার্চ) স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনাবিষয়ক বিজ্ঞপ্তিতে প্রকাশিত এপিডেমিওলজিক্যাল প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, মারা যাওয়া ৫২ জনের মধ্যে মাত্র ২১ জন (৪০ দশমিক ৪ শতাংশ) করোনার টিকা নিয়েছিলেন। এই ২১ জনের মধ্যে চার জন প্রথম ডোজ, ১৬ জন দ্বিতীয় ডোজ এবং একজন বুস্টার ডোজ নিয়েছিলেন। আর অবশিষ্ট ৩১ জনই (৫৯ দশমিক ৬ শতাংশ) করোনা টিকার কোনো ডোজ নেননি।
বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, গত ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ৬ মার্চ পর্যন্ত মোট মারা যাওয়াদের মধ্যে ডায়াবেটিস, ক্যান্সার ও কিডনি রোগসহ কোনো না কোনো দূরারোগ্য অসংক্রামক ব্যাধিতে (কোমরবিড) আক্রান্ত ছিলেন ২৯ জন। এর শতকরা হার ৫৫ দশমিক ৮ শতাংশ।
স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, মারা যাওয়া ৫২ জনের মধ্যে ৫২ দশমিক ২ শতাংশ মানুষ উচ্চ রক্তচাপে আক্রান্ত ছিলেন। ডায়াবেটিসে ৪১ দশমিক ৪ শতাংশ, বক্ষব্যাধিতে ২৪ দশমিক ১ শতাংশ, কিডনি ও নিউরোলোজিক্যাল রোগে ১৩ দশমিক ৮ শতাংশ এবং ক্যান্সারে ৬ দশমিক ৯ শতাংশ  আক্রান্ত ছিলেন। হৃদরোগ, গ্যাস্ট্রোলিভারজনিত, থাইরয়েড ও রিউম্যাটোলজিক্যাল (বাত জ্বর) রোগে আক্রান্ত ছিলেন ৩ দশমিক ৪ শতাংশ করে।

স্বাস্থ্য অধিদফতর আরও জানায়, মারা যাওয়াদের কেউ কেউ দুই বা ততোধিক রোগে আক্রান্ত ছিলেন। তবে গত সপ্তাহে স্ট্রোক, রক্তরোগ ও মানসিক সমস্যাজনিত কোনো রোগে আক্রান্ত হয়ে কেউ মারা যাননি।

এদিকে, একটানা তাণ্ডব চালানোর পর দেশে কয়েকদিন ধরে করোনায় মৃত্যু ও শনাক্ত কমেছে। সোমবার (৭ মার্চ) স্বাস্থ্য অধিদফতরের পাঠানো বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়ে দেশে আরও ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৯ হাজার ৮৯ জনে।
স্বাস্থ্য অধিদফতরের বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত হয়েছে আরও ৪৩৬ জনের দেহে। এ নিয়ে দেশে মোট করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৯ লাখ ৪৭ হাজার ৭০২ জনে।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ২০ হাজার ৯ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। শনাক্তের হার ২ দশমিক ১৮ শতাংশ। এছাড়া ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৩ হাজার ৫৪৬ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৮ লাখ ৪৬ হাজার ৮৮৪ জন।
Leave A Reply

Your email address will not be published.