চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে আওয়ামী লীগের যেসব নেতা কাউন্সিলর প্রার্থী হয়েছেন তাদের বহিষ্কারের সুপারিশ কেন্দ্রে যাচ্ছে আজ। গতকাল রাত ৯টায় দারুল ফজল মার্কেটে নগর আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে কার্যনির্বাহী কমিটির এক বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। বৈঠকে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী এম রেজাউল করিম চৌধুরীর জয় নিশ্চিত করতে নেতাকর্মীদের আরো তৎপর ভূমিকা পালনের নির্দেশ দেয়া হয়। রাত পৌনে ১২টায় এই বৈঠক শেষ হয়।
নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে শিক্ষা উপমন্ত্রী ও নগর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বৈঠকে উপস্থিতি ছিলেন।
বৈঠকের সিদ্ধান্তের ব্যাপারে জানতে চাইলে নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মেয়র আ.জ.ম. নাছির উদ্দীন আজাদীকে বলেন, ‘আমাদের ওয়ার্কিং কমিটির সভায় আমরা সর্বসম্মতভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছি- যারা আওয়ামী লীগের দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে কাউন্সিলর পদে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন তাদেরকে দল থেকে বহিষ্কারের জন্য কেন্দ্রে সুপারিশ পাঠানো হবে। শুধু আওয়ামী লীগ নয়; যারা যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, শ্রমিক লীগ ও মহিলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পদে থেকে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন তাদেরকেও স্ব স্ব সংগঠন থেকে বহিষ্কারের জন্য সুপারিশ পাঠানো হবে। এমনকি ভবিষ্যতে তাদেরকে কোনো পদে না রাখার পাশাপাশি দলীয় ব্যানারে নির্বাচনেরও সুযোগ দেয়া হবে না। এছাড়া দলীয় পদে থেকে কেউ যদি এসব বিদ্রোহী প্রার্থীদের সহযোগিতা করেন তাদেরকেও বহিষ্কারের সুপারিশ করা হবে। তাদেরকে ছাড় দেয়া হবে না। তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।’ বৈঠকে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি নঈম উদ্দিন চৌধুরী, অ্যাডভোকেট সুনীল সরকার, সিডিএ চেয়ারম্যান জহিরুল আলম দোভাষ, আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী, নোমান আল মাহমুদ, শফিকুল ইসলাম ফারুক, চন্দন ধর, অ্যাডভোকেট ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, মশিউর রহমান চৌধুরী, জহরলাল হাজারী, জোবাইরা নার্গিস খান, গোলাম মোহাম্মদ চৌধুরী, মোহাম্মদ জাবেদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here