নতুন মাইলফলকে পর্তুগিজ ফুটবলের রাজপুত্র ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। জাতীয় দলের জার্সিতে ইউরোপীয় দেশগুলোর ফুটবলারদের বিচারে সব থেকে বেশি ম্যাচ খেলে টপকে গেলেন স্পেনের সার্জিও রামোসকে।

শনিবার (৯ অক্টোবর) কাতারের বিপক্ষে ম্যাচে পর্তুগালের হয়ে ১৮১তম ম্যাচ খেলেছেন রোনালদো। আর স্পেনের সার্জিও রামোস দেশের হয়ে  খেলেছেন ১৮০টি ম্যাচ।


রেকর্ডের ‘বরপুত্র’ রোনালদো সম্প্রতি ইরানের আলি দায়িকে টপকে দেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি গোল করার নজির গড়েছিলেন। দেশের হয়ে ১১২ গোল রয়েছে বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সেরা এই ফুটবলারের নামের পাশে। আন্তর্জাতিক ফুটবলেও তিনি এখন সর্বোচ্চ গোলদাতা।

আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে শনিবার (৯ অক্টোবর) আসন্ন ফুটবল বিশ্বকাপের আয়োজক কাতারের মুখোমুখি হয়েছিল পর্তুগাল। দুই ম্যাচ পর এদিন জাতীয় দলের হয়ে মাঠে নামেন রোনালদো। ম্যাচের শুরু থেকেই কাতারকে চেপে ধরে রোনালদো বাহিনী। একের পর এক আক্রমণে কোণঠাসা করে রাখে অতিথিদের। ম্যাচের ৩৭তম মিনিটে লিড পায় পর্তুগাল। দিয়াগো দালোতের হেড কাতার ডিফেন্ডাররা আটকালেও ভুল করেননি রোনালদো। গোলপোস্টের সামনে বল পেয়ে সহজেই জালে পাঠান সিআরসেভেন।

ম্যাচের ৪৮তম মিনিটে আবারো কাতারের জালে কাঁপন ধরায় পর্তুগাল। স্কোরখাতায় নাম লেখান লিলে ডিফেন্ডার জোসে ফন্তে। ম্যাচের পরের সময়টুকু বল নিজেদের দখলে রাখলেও ভালো কোনো সুযোগ তৈরি করতে পারেনি পর্তুগাল। তবে শেষ মিনিটে গিয়ে পাওয়া সুযোগ কাজে লাগায় তারা। রাফায়েল লেওয়াওর অ্যাসিস্টে আন্দ্রে সিলভা খুঁজে নেন জালের ঠিকানা। তাতেই জয় নিশ্চিত হয় সান্তোসের দলের।

এদিকে, আগামী মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের ম্যাচে আবারও মাঠে নামবে রোনালদোর পর্তুগাল। প্রতিপক্ষ লুক্সেমবার্গ।

এদিকে, ব্যালন ডি’অর পুরস্কারের জন্য লিওনেল মেসি চারজন ফুটবলারকে ভোট দেবেন বলে জানিয়েছেন, সেখানে নেই পিএসজি তারকার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর নাম।

ফুটবলে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত পুরস্কার ব্যালন ডি’অর। ফরাসিভিত্তিক সাময়িকী ‘ফ্রান্স ফুটবল’ প্রতি বছর সেই বছরের সেরা পারফরমারকে এই পুরস্কার দিয়ে থাকে। এ বছরের পুরস্কারের জন্য ৮ অক্টোবর প্রকাশ করা হয় ৩০ জনের সংক্ষিপ্ত তালিকা। যেখানে নাম রয়েছে লিওনেল মেসি, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো, নেইমার জুনিয়র, রবার্ট লেওয়ানডোস্কি ও জর্জিনহো, এমবাপ্পে, নেইমার ও করিম বেনজেমার। ৩০ জনের মধ্যে থেকে আগামী ২৯ নভেম্বর নির্ধারণ করা হবে কে জিতবে সম্মানজনক এ পুরস্কার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here