ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে খেলার জন্য কম সময় দেওয়ায় সমালোচনার মুখে পড়েছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের নরওয়েজিয়ান কোচ ওলে গুনার সুলশার। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাবেক কোচ আলেক্স ফার্গুসনের পর এবার সুলশারের সমালোচনা করেছেন পর্তুগালের কোচ ফার্নান্দো সান্তোস।

শনিবার (৯ অক্টোবর) কাতারের বিপক্ষে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচকে সামনে রেখে সংবাদ সম্মেলনে সান্তোস বলেন, ‘রোনালদোর প্লেয়িং টাইম দরকার। সবশেষ ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষে একটা পূর্ণ ম্যাচে খেলেছে সে। এই ধাপে এসে এমন হলে চলবে না। কোচের উচিত তাকে পুরো সময় খেলতে দেওয়া।’ ক’দিন আগে ফার্গুসন সুলশারকে বলেছিলেন, ‘তোমার দলে যখন ওর মতো সেরা একজন থাকবে, তখন সব সময় ওকে নিয়েই একাদশ সাজানো উচিত।’


২৩ সেপ্টেম্বর প্রথম রোনালদোকে ছাড়া একাদশ সাজান ওলে গুনার। ওয়েস্টহ্যামের বিপক্ষে লিগ কাপের ওই ম্যাচে ১-০ গোলে হারতে হয় রেড ডেভিলদের। একাদশ তো দূরের কথা, রোনালদোর সেই ম্যাচে জায়গা হয়নি স্কোয়াডেই। এদিকে সবশেষ ২ অক্টোবর এভারটনের বিপক্ষে রোনালদোকে ছাড়াই একাদশ সাজিয়ে ১-১ গোলে ড্র করে সুলশারের দল। এরপরই ৪৮ বছর বয়সী কোচের সমালোচনা শুরু হয়।

এভারটনের বিপক্ষে পর্তুগিজ সুপারস্টার বদলি হিসেবে নামলেও আর দলকে জেতাতে পারেননি। ম্যাচের বয়স তখন ৫৭ মিনিট। এডিনসন কাভানির বদলি হিসেবে রোনালদোকে মাঠে নামান কোচ ওলে গানার সুলশার। তবে বেশ ক’টি সুযোগ পেয়েও সোনার হরিণের দেখা পাননি পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী।
 
অথচ ম্যাচের শুরুতেই আধিপত্য বিস্তার করে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। সাত মিনিটে প্রতিপক্ষের রক্ষণদেয়াল ভেঙে সুযোগ পেয়েও গোল করতে ব্যর্থ হন অ্যান্থনি মার্শিয়াল। বিপরীতে বলের দখল নিয়ে স্বাগতিকদের ডিফেন্স ব্যস্ত রাখলেও কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা পাচ্ছিল না এভারটন। বিরতির আগে আর ভুল করেননি মার্শিয়াল। ব্রুনো ফার্নান্দেজের অ্যাসিস্টে দুর্দান্ত গোল করে রেড ডেভিলদের লিড এনে দেন ফরাসি ফরোয়ার্ড।
 
বিরতির পর সমতায় ফিরতে অল-আউট ফুটবল খেলে এভারটন। ৬৫ মিনিটে সতীর্থের পাস থেকে বল জালে জড়ান ইংলিশ মিডফিল্ডার টাউনসেন্ড। শেষ পর্যন্ত আর গোল না হলে ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়ে দুদল। এ ড্রয়ের ফলে ৭ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের চার নম্বরে আছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here