সুইজারল্যান্ডে আফগান দূতাবাস থেকে জারি করা এক বিবৃতিতে বলা হয়, আমরুল্লাহ সালেহের নেতৃত্বে নির্বাসিত সরকার আফগানিস্তানের একমাত্র ‘বৈধ সরকার’।

ইসলামি প্রজাতন্ত্র আফগানিস্তান আমরুল্লাহ সালেহের নেতৃত্বে নতুন সরকার গঠনের কথা ঘোষণা করেছে। আশরাফ গনি সরকারের প্রথম ভাইস প্রেসিডেন্ট সালেহ, গনির অনুপস্থিতিতে নিজেকে আফগানিস্তানের তত্ত্বাবধায়ক রাষ্ট্রপতি ঘোষণা করেছিলেন।

সুইজারল্যান্ডের আফগান দূতাবাস থেকে জারি করা এক বিবৃতিতে বলা হয়, আমরুল্লাহ সালেহের নেতৃত্বে নির্বাসিত সরকার আফগানিস্তানের একমাত্র ‘বৈধ সরকার’।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, অন্য কোনো সরকার আফগানিস্তানের বৈধ সরকারকে জায়গা নিতে পারবে না। আফগানিস্তান বাইরের বাহিনীর দখলে থাকার কারণে প্রবীণদের সঙ্গে যথাযথ পরামর্শের পরই এই নির্বাসিত সরকার ঘোষণার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, আশরাফ গনি পালিয়ে যাওয়ার এবং আফগানিস্তানের রাজনীতি ভেঙে পড়ার পরে গনির প্রথম ভাইস প্রেসিডেন্ট আমরুল্লাহ সালেহ দেশকে নেতৃত্ব দেবেন। নির্বাসিত সরকার তার এক্সিকিউটিভ, জুডিশিয়াল এবং লেজিসলেটিভ ক্ষমতাকে খুব তাড়াতাড়ি সক্রিয় করবে। যদিও এই বিবৃতিতে আমরুল্লাহ সালেহ ছাড়া নির্বাসিত সরকারের অন্য কোনো কর্মকর্তাদের নাম বলা হয়নি। বিবৃতিতে আহমেদ মাসুদের নেতৃত্বে পানশিরে চলতে থাকা তালেবান বিরোধ যুদ্ধকে সমর্থন করা হয়েছে।

আশরাফ গনি সরকারের রাজনৈতিক নেতাদের পক্ষে জারি করা এই বিবৃতিতে ইসলামী প্রজাতন্ত্র আফগানিস্তানের সকল দূতাবাসকে তাদের কাজ চালিয়ে যাওয়ার অনুরোধ করেছে। মোল্লা আখুন্দের নেতৃত্বে অন্তর্বর্তীকালীন সরকার ঘোষণার এক মাসের মধ্যেই, তালেবান সম্প্রতি ঘোষণা করেছে যে আফগানিস্তান সাময়িকভাবে ৫০ বছর আগে মহম্মদ জহির শাহের সময়ে অনুমোদিত সংবিধান গ্রহণ করবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here