রাজধানীর ফকিরাপুলে একটি ছাপাখানা থেকে রনি শেখ (২০) নামে এক কর্মচারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। টিনশেড কারখানাটির পাটাতনের সঙ্গে রশি দিয়ে গলায় ফাঁস লাগানো ছিল তার।

ধারণা করা হচ্ছে সে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। তবে তদন্তের পর বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে বলে জানায় পুলিশ।

সোমবার (৬ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২টার দিকে ফকিরাপুল পানির ট্যাংকি গলির ১৭১ নম্বর টিনশেড ছাপাখানা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠায় মতিঝিল থানা পুলিশ।

মৃত রনির চাচা মো. বিল্লাল শেখ জানান, তাদের বাড়ি ফরিদপুরের কোতোয়ালি থানার পশ্চিম কাপুড়া গ্রামে। রনির বাবার নাম জাহিদ শেখ। ফকিরাপুলের নুর প্রিন্টিং অ্যান্ড প্রেস নামে ছাপাখানায় ছয় মাস ধরে কাজ করছিল। একই কারখানায় তার বাবাও কাজ করেন। দুই ভাইবোনের মধ্যে বড় ছিল সে।

তিনি জানান, কারখানা থেকে সকালে তাকে ফোনে খবর দেওয়া হয়। পরে তিনি সকাল পৌনে ৮টার দিকে কারখানায় গিয়ে দেখতে পান রনি গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় ঝুলছে। তার হাতে ‘আইরিন’ নাম লেখা রয়েছে। কীভাবে তার মৃত্যু হয়েছে, তা জানেন না। তবে প্রেমঘটিত কোনো কারণ থাকতে পারে বলে তার ধারণা।

এ বিষয়ে মতিঝিল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আরাফাত ইবনে শফিউল্লাহ জানান, রাতে কারখানাতেই ঘুমিয়ে ছিল সে। সকালে সহকর্মীরা ঘুম থেকে উঠে পাশের রুমে তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায় বলে দাবি করেছে। পরে খবর দিলে ওই কারখানা থেকে পাটাতনের সঙ্গে রশি দিয়ে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

তিনি বলেন, মৃতদেহে কোনো আঘাতে চিহ্ন পাওয়া যায়নি। তবে গলায় দাগ রয়েছে। বিস্তারিত জানার জন্য তদন্ত চলছে। আর ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হওয়া যাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here