য়্যুভেন্তাস ছেড়ে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যোগ দেয়ার পর প্রথমবারের মতো অনুশীলন করলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। তবে ইউনাইটেডের হয়ে না, জাতীয় দলের হয়ে অনুশীলন করেছেন সিআর সেভেন।

গত শুক্রবার নাটকীয় দল-বদলে য়্যুভেন্তাস ছেড়ে এক যুগ পর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে ফিরে আসেন ক্রিস্টিয়ানো। তুরিন থেকে সরাসরি পর্তুগালের লিসবনে চলে গিয়েছিলেন এই তারকা। সেখানেই সম্পন্ন হয় ইউনাইটেডে যোগ দেওয়ার আগে তার স্বাস্থ্য পরীক্ষার আনুষ্ঠানিকতা। এরপরই জাতীয় দলের অনুশীলনে যোগ দিয়েছেন রোনালদো।

বুধবার রাতে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে আয়ারল্যান্ডের মুখোমুখি হবে তার দল। এরপর ৭ সেপ্টেম্বর তাদের প্রতিপক্ষ আজারবাইজান। ২০২২ বিশ্বকাপ আয়োজক কাতারের বিপক্ষেও একটি প্রীতি ম্যাচ খেলার কথা রয়েছে তাদের। আন্তর্জাতিক ফুটবলে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড এককভাবে নিজের দখলে নেয়ার দ্বারপ্রান্তে রোনালদো। পর্তুগালের জার্সিতে করেছেন ১০৯ গোল। আর এক গোল করলেই, ছাড়িয়ে যাবেন ইরানের কিংবদন্তী আলি দায়িকে। দায়ি ইরানের হয়ে ১৯৯৩ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত করেছিলেন ১০৯ গোল।

জাতীয় দলের হয়ে রোনালদো সর্বশেষ গোল করেছিলেন ফ্রান্সের বিপক্ষে, ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের গ্রুপ পর্বে। এমবাপ্পেদের বিপক্ষে জোড়া গোল করেছিলেন তিনি, বিপরীতে করিম বেনজেমাও পর্তুগালের জালে দেন দুই গোল। ম্যাচটিও শেষ পর্যন্ত ড্র হয় ২-২ গোলে। এবারের ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু হওয়ার আগে জাতীয় দলের হয়ে রোনালদোর গোলসংখ্যা ছিল ১০৪টি। ইউরোতে তিনি করেন ৫ গোল, ফলে ইরানের আলি দায়িকে সর্বোচ্চ গোলের হিসাবে ধরে ফেলেন তিনি। এখন তাকে পেছনে ফেলার সুযোগ পর্তুগিজ ফুটবলারের সামনে।
জাতীয় দলের ম্যাচ থাকায় বিলম্বিত হয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে রোনালদোর দ্বিতীয় দফার অভিষেকেও। তা ছাড়া কোভিড প্রটোকলের বিষয় তো রয়েছেই। করোনা মহামারির সংক্রমণ আগের মতো ভয়ানক না হলেও এখনো বেশ সাবধানী ইউরোপের দেশগুলো। তাই ইউনাইটেডে ফেয়ার পর কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হতে পারে রনকে। তবুও নিউক্যাসেলের বিপক্ষে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের পরের ম্যাচে মাঠে দেখা যেতে পারে রোনালদোকে।

২৭ আগস্ট রেড ডেভিলদের সঙ্গে সমঝোতায় আসেন তিনি। দুই বছরের চুক্তিতে তিনি ১২.৮৫ মিলিয়ন পাউন্ডে ইংল্যান্ডের ক্লাবটিতে এসেছেন। সঙ্গে থাকছে এক বছর চুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর শর্তও। এর আগে ২০০৩ সাল থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে খেলেছেন রোনালদো। তিনটি প্রিমিয়ার লিগসহ তখন জিতেছেন দুটি লিগ কাপ, চ্যাম্পিয়ন লিগ, ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপ, এফএ কাপ ও কমিউনিটি শিল্ডের ট্রফি। 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here