নোয়াখালীতে স্কুলছাত্র শিশু জিহাদ হত্যা মামলায় অভিযুক্ত আবদুল ওয়াদুদ মিঠু নামে এক আসামির মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ।

বৃহস্পতিবার (২৬ আগস্ট) প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে ভার্চুয়াল আপিল বিভাগ এ রায় দেন।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ।

জানা যায়, আবদুল ওয়াদুদ মিঠু বেগমগঞ্জের আলাইয়ারপুর ইউনিয়নের রামেশ্বরপুর কমর উদ্দিন চৌকিদার বাড়ির গোলাম মোস্তফার ছেলে। তাদের বাড়ির মৃত আনোয়ার উল্লাহর ছেলেদের সঙ্গে জমি জমা নিয়ে তার পরিবারের সঙ্গে বিরোধ চলে আসছিল। এ অবস্থায় ২০০৯ সালের ১৩ জানুয়ারি আনোয়ার উল্লাহর ছেলে সৌদি প্রবাসী সিরাজুল ইসলামের বড় সন্তান বালুচরা কিন্ডারগার্টেনের কেজি টু শ্রেণির ছাত্র জিহাদকে স্কুলে যাওয়ার পথে দা দিয়ে কুপিয়ে আহত করে মিঠু। এ সময় আশে পাশের লোকজনের চিৎকারে মিঠু দা রেখে পালিয়ে যায়। পরে মুমূর্ষু অবস্থায় জিহাদকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন।
 
এ ঘটনায় জিহাদের চাচা কামাল উদ্দিন ইয়াসিন বাদী হয়ে আবদুল ওয়াদুদ মিঠুকে আসামি করে বেগমগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে পুলিশ রংপুর থেকে মিঠুকে গ্রেপ্তার করে। এ মামলার বিচার শেষে ২০১০ সালের ৭ জুলাই আবদুল ওয়াদুদ মিঠুকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন নোয়াখালী জেলা ও দায়রা জজ।

পরে নিয়ম অনুসারে মৃত্যুদণ্ডাদেশ অনুমোদনের জন্য নথি (ডেথ রেফারেন্স) হাইকোর্টে পাঠানো হয়। পাশাপাশি আসামি ওয়াদুদ আপিল করেন। পরবর্তীতে ডেথ রেফারেন্স ও আপিলের শুনানি শেষে হাইকোর্ট বিভাগ ২০১৫ সালের ১৫ মে মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখেন। এরপর আসামি আপিল করেন। বৃহস্পতিবার রায়ে আপিল বিভাগ মিঠুর মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here