মাদক মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া চিত্রনায়িকা পরীমনি বর্তমানে কারাগারে আছেন। তিন দফায় সাত দিনের রিমান্ড শেষে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এরই মধ্যে পরীমনির জামিন চেয়ে নিম্ন আদালতে আবেদন করেছেন তার আইনজীবী মো. মুজিবুর রহমান।

আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর শুনানি দিন ধার্য করা হয়েছিল। এবার জামিন শুনানির আদেশ চ্যালেঞ্জ করে জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেছেন পরীমনি। বৃহস্পতিবার (২৬ আগস্ট) দুপুরে ওই আবেদনের শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে।

বুধবার (২৫ আগস্ট) নিম্ন আদালতের আদেশ চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে আবেদন করেন পরীমনির আইনজীবী মুজিবুর রহমান। বৃহস্পতিবার বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ইসলাম ও বিচারপতি কে এম জাহিদ সারওয়ার কাজলের হাইকোর্ট বেঞ্চে জামিন আবেদন উপস্থাপন করা হয়। পরে শুনানির সময় নির্ধারণ করা হয়।

এর আগে রাজধানীর বনানী থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় চিত্রনায়িকা পরীমনির জামিন চেয়ে গত রোববার (২২ আগস্ট) তার আইনজীবী মো. মজিবুর রহমান জামিন আবেদন করেন। এ বিষয়ে আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালতে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে তৃতীয় দফার রিমান্ড শেষে চিত্রনায়িকা পরীমনিকে শনিবার (২১ আগস্ট) আদালতে হাজির করা হলে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। শনিবার দুপুর পৌনে ১২টার দিকে অপরাধ গোয়েন্দা বিভাগ (সিআইডি) তাকে আদালতে হাজির করে। পরে শুনানি শেষে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক আশেক ইমাম এ আদেশ দেন।

শনিবার পরীমনিকে আদালতে হাজির করা হলেও তার আইনজীবী মজিবুর রহমান জামিনের আবেদন করেননি। তবে তিনি পরীমনির সঙ্গে কথা বলার জন্য আবেদন করেন। সে আবেদনের ওপর শুনানি শেষে বিচারক কথা বলার অনুমতি দেননি।

বিচারক এজলাসকক্ষ ত্যাগ করার পর পরীমনির কাছে যান তার আইনজীবী নীলাঞ্জনা রিফাত। তখন পরীমনি তাকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘আপনারা আমার জামিন চান না কেন? আমি তো পাগল হয়ে যাচ্ছি। আপনারা জামিন চান, আপনারা আমার সঙ্গে কী কথা বলবেন? আমি তো পাগল হয়ে যাব! আপনারা  বুঝতেছেন আমার কী কষ্ট হচ্ছে?’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here