তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, খুনি চক্র বঙ্গবন্ধুর ছায়াকেও ভয় পেত। যে কারণে পরিবারের সদস্যদের হত্যা করেছিল। বঙ্গবন্ধুর হত্যার পৃষ্ঠপোষকরা দেশে আস্ফালন করছে। যেকোনো মানুষের সাফল্যের পেছনে জীবনসাথীর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা থাকে। বঙ্গবন্ধুর ক্ষেত্রেও এর ব্যতিক্রম হয়নি। বঙ্গবন্ধুর জীবনে বঙ্গমাতার অবদান অনস্বীকার্য। বঙ্গমাতা শুধু সংসার সামলাননি, বঙ্গবন্ধুর অবর্তমানে তিনি দলকেও সামলেছেন। তিনি আজীবন বঙ্গবন্ধুর পাশে থেকে সাহস যুগিয়েছিলেন। মরণেও বঙ্গবন্ধুর সঙ্গী হয়েছেন তিনি। বঙ্গমাতা অনেক ধৈর্যশীল ছিলেন, বিপদে কখনো হতাশ হননি। বিচক্ষণতার সাথে সব কিছু সামলেছেন তিনি।

‘সংকটে সংগ্রামে নির্ভীক সহযাত্রী’-এ স্লোগানে রোববার (৮ আগস্ট) বিকেলে রাজধানীর তথ্য ভবন মিলনায়তনে, বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯১তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও চলচ্চিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠানে এ সব কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী।

এ সময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, অভিনয় বা মডেলিংয়ের আড়ালে কেউ যদি অনৈতিক কাজে জড়িত থাকে তার দায় তার একান্তই ব্যক্তিগত। এর জন্য পুরো অঙ্গনকে দায়ী করা যাবে না। অভিযুক্ত কয়েকজনের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।


হাছান মাহমুদ বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে বলেন, বিএনপি মহাসচিব টিকা কর্মসূচির শুরু থেকে বিভ্রান্তিমূলক বক্তব্য দিয়ে আসছেন। তারা সব সময় অপপ্রচার চালিয়েছেন। এখন তারা নিজেরাই টিকা গ্রহণ করছেন। গণটিকা শুরু হওয়ায় তারা হিতাহিত জ্ঞান হারিয়েছে। তারা মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছেন।

আলোচনা সভায় তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের স্মৃতিচারণ করে বলেন, বঙ্গমাতা বাঙালির ইতিহাসে এক হার না মানা সহযোদ্ধা গেরিলা। বাঙালির অনুভূতির নাম ফজিলাতুন নেছা মুজিব। কিন্তু ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গে বর্বর জঘন্যতম হত্যাকাণ্ডের শিকার হন তিনি।

এ সময় তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর পরিবারের ইতিহাস মুছে ফেরার ক্ষমতা কারোর নেই।

তথ্য প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু, বঙ্গবন্ধু হতে পারতেন না যদি না বঙ্গমাতার সাপোর্ট না পেতেন। বঙ্গবন্ধু পরিবারের প্রত্যেকটি মানুষ এক একটি ইতিহাস বলেও মন্তব্য করেন তিনি। দেশের ইতিহাসে বঙ্গবন্ধুর পরিবারের প্রত্যেকটি সদস্যের অবদান আছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here