মাদক মামলায় চারদিনের রিমান্ড শেষে চিত্রনায়িকা পরীমনিকে মঙ্গলবার (১০ আগস্ট) আদালতে তোলে পুলিশ। এ সময় আরও পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করে মামলার তদন্ত সংস্থা সিআইডি। এদিন আদালতে তোলা হয় পরীর সহযোগী আশরাফুল ইসলাম দিপুকেও। শুনানি শেষে তাদের দুই দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট দেবব্রত বিশ্বাস।

 

এর আগে বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মামুনুর রশীদ শুনানি শেষে চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছিলেন পরীমনির। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আব্দুল্লাহ আবু সংবাদমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছিলেন।


তিনি বলেছিলেন, বনানী থানার মাদক মামলায় তদন্ত কর্মকর্তা সুষ্ঠু তদন্তের প্রয়োজনে আসামির সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেন। এ সময় আসামিপক্ষের আইনজীবী রিমান্ড বাতিল চাওয়ার পাশাপাশি জামিন চেয়ে আবেদন করেন।

বুধবার (৪ আগস্ট) বিকেলে পরীমনির বাসায় অভিযান চালায় র‌্যাব। এ সময় তার বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মাদক উদ্ধার করা হয়। পরদিন (৫ আগস্ট) সন্ধ্যার দিকে শামসুন্নাহার স্মৃতি ওরফে পরীমনি ও আশরাফুল ইসলাম ওরফে দীপুর বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন, ২০১৮- এর ৩৬ (১) এর সারণি ২৪(খ)/৩৬ (১) এর সারণি ১০ (ক)/৪২(১)/৪১ ধারায় একটি মামলা দায়ের করা হয়।


ওই দিনই আদালতে তোলা হয়েছিল পরীমনিকে। আদালতে হাজির করার পর তার পক্ষে লড়তে ওকালতনামায় স্বাক্ষর করা নিয়ে দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়েন আইনজীবীরা। আইনজীবীদের মধ্যে কয়েকটি গ্রুপ সৃষ্টি হলে একপর্যায়ে ঢাকা মহানগর হাকিম মামুনুর রশীদ এজলাস ত্যাগ করেন।

এ সময় আইনজীবীদের উদ্দেশে বিচারক বলেন, আগে আপনারা ঠিক করেন, কে আসামি পরীমনির আইনজীবী হবেন। তারপর শুনানি হবে।

এদিকে পরীমনিকে জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসছে চাঞ্চল্যকর বিভিন্ন তথ্য। সেগুলো নিয়ে কাজ করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এরই মধ্যে পুলিশ কর্মকর্তা গোলাম সাকলায়েন শিথিলের সঙ্গে সম্পর্কের খবর পাওয়া গেছে পরীমনির। তার বাসায় ১৮ ঘণ্টা ছিলেন এ নায়িকা। সিসিটিভির ফুটেজেও ধরা পড়েছে বিষয়টি।


গ্রেপ্তারের পর টক অব দ্য টাউনে পরিণত হয়েছেন ঢালিউড চিত্রনায়িকা পরীমনি। তাকে গ্রেপ্তারের পর নড়েচড়ে বসেছে ঢালিউড। পরীমনির সদস্যপদ স্থগিত করেছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি। তবে নির্দেোষ প্রমাণিত হলে সমিতির সদস্যপদ ফিরে পাবেন এ অভিনেত্রী। 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here