প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা বলেছেন, কোভিড পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সিলেট-৩ আসনের ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। আইনি ও সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার কারণে নির্বাচন পেছানোর সুযোগ নেই।

 

শনিবার (২৪ জুলাই) সিলেট জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সিলেট-৩ আসনের উপ-নির্বাচন উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক সভা শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, আগামী ২৮ জুলাই অনুষ্ঠিতব্য উপ-নির্বাচনের সব কার্যক্রম লকডাউন বহির্ভূত থাকবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণ নিশ্চিতে কঠোর অবস্থানে থাকবে প্রশাসন। এছাড়া সিলেট-৩ আসনে ইভিএমে ভোটগ্রহণ হবে এবং যথাযথভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভোট গ্রহণের জন্য সব পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানান তিনি।
করোনা মহামারির এ পরিস্থিতিতে সবাইকে মাস্ক ব্যবহার ও নিরাপদ দূরত্ব মেনে ভোট কেন্দ্রে আসার আহ্বান জানান নুরুল হুদা।
সিলেটের জেলা প্রশাসক ও সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা কাজী এমদাদুল ইসলামের সভাপতিত্বে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শাহাদাত হোসেন চৌধুরী (অব.), সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি মফিজ উদ্দিন আহমদ, মহানগর পুলিশ কমিশনার নিশারুল আরিফসহ বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ের শীর্ষ কর্মকর্তারা।
এ সময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শাহাদাত হোসেন চৌধুরী (অব.) বলেন, সাংবিধানিক দায়িত্ব পালন করতে সবকিছুই করছে কমিশন, এতে কারও কোনো সংশয়ের অবকাশ নেই।
প্রসঙ্গত, সিলেটের দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জ উপজেলা নিয়ে গঠিত সিলেট-৩ আসন। আসনটিতে ভোটার রয়েছেন তিন লাখ ৩০ হাজার। আগামী ২৮ জুলাই সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ইভিএমে বিরতিহীনভাবে এ আসনের উপ-নির্বাচন ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।
নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের হাবিবুর রহমান, জাতীয় পার্টির মোহাম্মদ আতিকুর রহমান, বাংলাদেশ কংগ্রেসের জুনায়েদ মোহাম্মদ মিয়া ও স্বতন্ত্র প্রার্থী শফি আহমেদ চৌধুরী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।
গত ১১ মার্চ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সিলেট-৩ আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদ সামাদ চৌধুরী ঢাকার একটি হাসপাতালে মারা যান। এরপর আসনটি শূন্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here