Ekota Express: Luxurious Train of Bangladesh Railway Leaving Dhaka Railway station
https://www.youtube.com/watch?v=rh-V084GHmQ

 

সার্ভারজনিত সমস্যার কারণে মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) ট্রেনের টিকিট বিক্রি শুরু হয়নি। বুধবার (১৪ জুলাই) থেকে টিকিট বিক্রি শুরু হবে।

 

জানা গেছে, বুধবার সকাল ৮টা থেকে শুরু হবে ট্রেনের টিকিট বিক্রি। এদিন দেওয়া হবে ১৬, ১৭ ও ১৮ জুলাইয়ের আগাম টিকিট। 

সময় সংবাদকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন) সরদার শাহাদাত আলী। 

তিনি জানান, দীর্ঘদিন সার্ভার বন্ধ থাকায় টিকিটিং ব্যবস্থাপনায় কিছুটা জটিলতা দেখা দেওয়ায় মঙ্গলবার থেকে টিকিট দেওয়ার কথা থাকলেও তা সম্ভব হয়নি। তাছাড়া সব ট্রেন চলছে না, ফলে টিকিটের রি-শিডিউল করতে অনেক সময় লেগে গেছে। এ কারণে সময়মতো টিকিট বিক্রি শুরু করা যায়নি। 

তিনি আরও জানান, যে কয়টা ট্রেন চলবে তার সিরিয়াল ঠিক করে আসন বিন্যাস সময়মতো শেষ করতে না পারায় বুধবার সকাল ৮টা থেকে শুরু হবে ট্রেনের ঈদ যাত্রার আগাম টিকিট বিক্রি।
এর আগে মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) দুপুরে রেলভবনে সময় নিউজকে রেলমন্ত্রী রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন জানান, বিকেল ৫টা থেকে ট্রেনের টিকিট পাওয়া যাবে। 

এর আগে সোমবার মন্ত্রী বলেন, ১৫ জুলাই থেকে ট্রেন চলাচল শুরু হবে। 

সে সময় তিনি জানান, এক আসন ফাঁকা রেখে ট্রেন চলবে। প্রতিটি ট্রেনের মোট আসনের ৫০ শতাংশ টিকিট বিক্রি হবে, সব টিকিট অনলাইনে বিক্রি হবে। বন্ধ থাকবে কাউন্টার। 

এদিকে, ঈদকে সামনে রেখে আগামী ১৫ জুলাই থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত চলমান কঠোর বিধিনিষেধ শিথিল করে প্রজ্ঞাপন জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। 

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, আগামী ১৫ জুলাই মধ্যরাত থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত চলমান কঠোর বিধিনিষেধ শিথিল থাকবে। জনসাধারণের যাতায়াত, ঈদ পূর্ববর্তী ব্যবসা বাণিজ্য পরিচালনা, দেশের আর্থ সামাজিক অবস্থা এবং অর্থনৈতিক কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখার স্বার্থে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে এ সময়ে জনসাধারণকে সতর্ক থাকা, মাস্ক পরিধানসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। 

এই আট দিনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাস, লঞ্চসহ সব ধরনের গণপরিবহন চলবে। একইসঙ্গে সীমিত পরিসরে খুলবে দোকানপাট ও শপিংমল। 

প্রসঙ্গত, আগামী ২১ জুলাই বাংলাদেশে উদযাপিত হবে পবিত্র ঈদুল আজহা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here