চট্টগ্রামে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া এক নারীর লাশ হাসপাতালে ফেলেই পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে ছেলে ও স্বামী বিরুদ্ধে। বুধবার (৭ জুলাই) রাতে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ওই নারীর মৃত্যুর পর তার স্বামী ও সন্তান পালিয়ে যান।

 

মারা যাওয়া ওই নারীর নাম আসমা আকতার ( ৩৮ বছর)। তার স্বামীর নাম মোজাম্মেল হক। বাসা নগরের আগ্রাবাদ মৌলভীপাড়া এলাকায়। 

হাসপাতাল সূত্র জানায়, গত মঙ্গলবার (৬ জুলাই) আসমাকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন তার স্বামী ও সন্তান। আসমা জীবিত থাকা পর্যন্ত স্বামী হাসপাতালের সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছিলেন মোজাম্মেল হক। কিন্তু মৃত্যুর পর থেকে আর কারও ফোন রিসিভ করছেন না। চট্টগ্রাম নগরীর আগ্রাবাদের মৌলভী পাড়ায় তাদের বাসায় গেলে বাইরে তালা ঝুলানো অবস্থায় পায় ডবল মুরিং থানা পুলিশ। 

পরে বাধ্য হয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনকে আসমার দাফনের দায়িত্ব দেয়।   

কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের সেচ্ছাসেবী  দিলরুবা আক্তার বলেন, খবর পেলে আমরা আসি। প্রতিটা ধর্মের লাশ আমরা স্রষ্টার সন্তুষ্টি অর্জনের দাফন ও সৎকার করে থাকি। মানবিক ও সম্মানের সাথে গোসল করিয়ে দাফন করি সৎকার করি। আমরা এগুলো করে থাকি মানবিক বিবেচনা। মানুষ হয়ে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য। 

চট্টগ্রাম মেডিকেলে সহকারি পরিচালক  ডা. মো. সাজ্জাদ হোসেন চৌধুরী বলেন, আসমা আকতার ৬ জুলাই ভর্তি হয়। তাহার কোভিডের সাথে নিউমোনিয়া ও হার্টের সমস্যা ছিল। মারা যাবার পর স্বজনের সাথে যোগাযোগ করি। কিন্ত মারা যাবার পর তাদের পাওয়া যাচ্ছে না। তাই নিয়ম মোতাবেক প্রথমে পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চকে জানাই। পরে দাফনের জন্য কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের হাতে তুলে দিই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here