জান্তাবিরোধীদের সঙ্গে সংঘর্ষে অন্তত ২৫ জনকে হত্যা করেছে মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী। সাগেইং অঞ্চলের দীপাইনে শুক্রবারে (২ জুলাই) এ সহিংসতা হয়েছে।

 

এ নিয়ে সামরিক বাহিনীর মুখপাত্রের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। রাষ্ট্রপরিচালিত গ্লোবাল নিউ লাইট অব মিয়ানমার জানিয়েছে, সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা অতর্কিত হামলা চালিয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর এক সদস্যকে হত্যা ও ছয়জনকে আহত করেছে। খবর রয়টার্সের। 

পরে নিরাপত্তা বাহিনী পাল্টা আক্রমণ করলে সন্ত্রাসীরা পিছুহটে। মিয়ানমারে গত বছরের নভেম্বরের নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগ তুলে মিন অং হ্লাইং নেতৃত্বাধীন সামরিক বাহিনী ফেব্রুয়ারিতে নোবেলজয়ী অং সান সু চির গণতান্ত্রিক সরকারকে উৎখাত করে নিজেরা ক্ষমতায় বসে। 

তারপর থেকে দেশটি টানা বিক্ষোভ, ধর্মঘট ও অসহযোগ আন্দোলন দেখেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে নিরাপত্তা বাহিনীকে ব্যাপক দমনপীড়নের আশ্রয় নিতে হয়। 

সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে দেশটির বিভিন্ন এলাকায় নিরাপত্তা বাহিনীকে অভ্যুত্থানবিরোধী সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোর সঙ্গে লড়তেও হচ্ছে।
ফেসবুকের এক পোস্টে দীপাইনের গণপ্রতিরক্ষা বাহিনী বলছে, তাদের ১৮ সদস্য নিহত ও ১১ জন আহত হয়েছেন। মিয়ানমারের বিভিন্ন অঞ্চলের জান্তাবিরোধীদের নিয়ে এই গণপ্রতিরক্ষা বাহিনী গড়ে তোলা হয়েছে। 

সীমান্ত অঞ্চলে কয়েক দশক ধরে দুডজনেরও বেশি জাতিগত সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে লড়ছে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী। কিন্তু নৃতাত্ত্বিক বার্মিজ সংখ্যাগুরুদের কেন্দ্রভূমি বলা হয় দীপাইনকে। 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here