করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে করে লকডাউনের সময়সীমা বাড়ানো হতে পারে। গত ৩০ জুন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন সাংবাদিকদের সে ইঙ্গিতেই দিয়েছিলেন।

 

রোববার (৪ জুলাই) সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় সূত্র গণমাধ্যমকে জানায়, চলমান লকডাউন আরও সাত দিন বাড়তে পারে। কারণ করোনা পরিস্থিতির এখনও কোনো উন্নতি হয়নি। মৃত্যুরও সংখ্যা একশোর বেশি হচ্ছে। তাই বিধিনিষিধের মেয়াদ বাড়ানোর দিকে যেতে পারে সরকার। এছাড়া সরকারের কাছে অন্য কোনো পথ খোলা নেই। শিগগিরই এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। 

এদিকে, লকডাউন আরও সাতদিন বাড়ানোর পক্ষে মত দিয়েছেন কোভিড-১৯ বিষয়ক জাতীয় টেকনিক্যাল পরামর্শক কমিটির সদস্য ডা. কাজী তারিকুল ইসলাম। 

তিনি বলেন, করোনার যে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট তা অত্যন্ত ভয়ানক। এই ভ্যারিয়েন্ট শহর-গ্রাম সবখানে ছড়ায়। এই ভয়াবহতা থেকে মানুষকে বাঁচাতে লকডাউন আরও সাতদিন বাড়াতে হবে।
এর আগে গত ২৪ জুন জাতীয় টেকনিক্যাল পরামর্শক কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ সহিদুল্লাহ স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে সারা দেশে ১৪ দিনের ‘শাটডাউন’র সুপারিশ করা হয়। 

এর আগে সংক্রমণ রোধ করতে বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) থেকে সাতদিনের সরকারি ‌‘বিধি-নিষেধ বা ‘কঠোর লকডাউন’ ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। লকডাউনের চতুর্থ দিনে রোববার (৪ জুলাই) দুপুর পর্যন্ত সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে বাইরে বের হওয়ায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৪২৯ জনকে। 

এদিন দেশে ১৫৩ জনের মৃত্যুর হয়েছে। যা দেশে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫ হাজার ৬৫ জনে। এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা পজিটিভ হয়েছেন ৮ হাজার ৬৬১ জন। এ নিয়ে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৯ লাখ ৪৪ হাজার ৯১৭ জন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here