লকডাউনে সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নে মোবাইল কোর্ট ছাড়াও মাঠে পুলিশের কড়া নজরদারি থাকবে বলে জানিয়েছেন ডিএমপি কমিশনার শফিকুল ইসলাম।

 

তিনি জানান, ঘর থেকে বের হওয়ার যুক্তিসঙ্গত কারণ না দেখালে ৬ মাসের জেল ও জরিমানা হবে। 

বুধবার (৩০ জুন) ডিএমপি কমিশনার জানান, বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) থেকে লকডাউন মানাতে ছাড় দেবে না পুলিশ। 

অযথা ঘোরাঘুরি করলেই গ্রেপ্তার হতে হবে বলে সাফ জানিয়েছেন ডিএমপি কমিশনার। 

তিনি বলেন, নানাবিধ অজুহাত দেখিয়ে রাস্তায় বের হয়, আমরা যদি সন্তুষ্ট না হয় যে, উনি কী কারণে বের হয়েছেন। তাহলে কিন্তু এবার তাকে বেশ আইনি ঝামেলায় পড়তে হবে।
এদিকে, আজও সাধারণ মানুষের রাজধানীর ছাড়ার প্রবণতা ছিল চোখে পড়ার মতো। কঠোর লকডাউনের আগের দিনও বাড়ি যেতে মানুষের এই যাত্রা। যদিও সীমিত লকডাউন চলছে। 

গণপরিবহন না থাকায় গন্তব্যে পৌঁছাতে হয়রানির শিকার হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। 

এবারের লকডাউনে মুভমেন্ট পাশ যেমন থাকছে না তেমনি, অলিগলির দোকানপাটও খোলা রাখা যাবে না। এমনকি শিল্প-কারখানার কর্মকর্তা ও কর্মচারী যারা রাজধানীতে রয়েছেন তাদের নিজস্ব কর্মস্থলে চলে যাওয়ারও অনুরোধ জানান ডিএমপি কমিশনার। 

তিনি বলেন, মালিক কর্মকর্তা, কর্মচারী যারা ঢাকাতে থাকেন উনারা যেন অনুগ্রহপূর্বক ফ্যাক্টরিতে চলে যান। কারণ উনি বের হলে উনাকে রিকশায় যেতে হবে। উনি উনার ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যবহার করে যেতে পারবেন না। 

কাঁচাবাজার খোলা স্থানে সরিয়ে আনার নির্দেশনার পাশাপাশি রিকশা চলাচলের অনুমতি থাকলেও ইচ্ছেমতো তা ব্যবহারে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কঠোর থাকবে বলে জানিয়েছেন মহানগর পুলিশ প্রধান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here