জটিল সমীকরণ পেরিয়ে ইউরোর শেষ ষোলো নিশ্চিত করল ডেনিশরা। রাশিয়ার বিপক্ষ ৪-১ গোলের বড় ব্যবধানে বড় জয় পায় তারা।

 

পয়েন্ট টেবিলের জটিল সমীকরণ পেরিয়ে ইউরোর শেষ ষোলো নিশ্চিত করলো ডেনমার্ক। পরের রাউন্ডে যাওয়ার জন্য প্রয়োজন ছিল বড় জয়। শুধু তাই নয়, অন্য ম্যাচে আবার হারতে হবে ফিনল্যান্ডকে। দুটি সমীকরণই যেন মিলে যায় ভাগ্যক্রমে। রূপকথার মতো এমন জয়ের পর উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়েন সমর্থকরা। সঙ্গে স্মরণ করেন মাঠে অসুস্থ হয়ে পড়া ক্রিস্টিয়ান এরিকসেনকেও। 

ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের দ্বিতীয় দিন ঘটে যায় এক হৃদয়বিদারক ঘটনা। কোপেনহেগেনে ডেনমার্কের প্রতিপক্ষ ফিনল্যান্ড। ম্যাচের প্রথমার্ধের শেষদিকে হঠাৎ মাঠে পড়ে যান ডেনমার্কের ক্রিস্টিয়ান এরিকসেন। হঠাৎই আশঙ্কা, এরিকসেন বেঁচে আছেন তো? খানিক পরে নিশ্চিত হওয়া যায় বেঁচে আছেন এরিকসেন। সঙ্গে সঙ্গে তাকে নেওয়া হয় হাসপাতালে। এ ঘটনায় বেশ কিছুক্ষণ খেলা বন্ধ থাকে। তবে পরে ম্যাচ শুরু হলেও দুর্ভাগ্যক্রমে সে ম্যাচ হেরে যায় ডেনিশরা। 

এরিকসেনবিহীন ডেনমার্কের সামনে শেষ ষোলোয় যাওয়ার পথটা হয়ে দাঁড়ায় বেশ জটিল। আর এই জটিল সমীকরণ যেন সহজ করে দিলেন ভাগ্যদেবী নিজেই। প্রথম ম্যাচ হেরে চাপে ছিল ডেনিশরা। বেলজিয়ামের কাছেও হেরে গ্রুপপর্ব থেকে বিদায় নেওয়ার শঙ্কায় পড়ে তারা।  

শেষ ষোলোয় যাওয়ার জন্য সমীকরণ দাঁড়ায়, বড় ব্যবধানে জিততে হবে রাশিয়ার বিপক্ষে। অন্যদিকে বেলজিয়ামের কাছে হারতে হবে ফিনল্যান্ডকে। তবেই মিলবে দ্বিতীয় দল হিসেবে ইউরোর শেষ ষোলোয় ওঠার টিকিট। জটিল এই সমীকরণ আশ্চর্যজনকভাবে মিলে গেছে। রাশিয়ার বিপক্ষ ৪-১ গোলের বড় ব্যবধানে বড় জয় পায় তারা। আর তাই দর্শকরাও মেতেছেন বাঁধভাঙা উল্লাসে।
রূপকথার মতো এক জয়ে গ্রুপের দ্বিতীয় সেরা দল হিসেবে তারা উঠল শেষ ষোলোয়। ৩ ম্যাচে তাদের সংগ্রহ ৩ পয়েন্ট। ম্যাচ শেষে কোপেনহেগেনে ডেনিশ সমর্থকদের উদযাপন ছিল দেখার মতো। 

সফল অস্ত্রোপচারের পর হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন ড্যানিশ ফুটবলার ক্রিস্টিয়ান এরিকসেন। পূর্ণ সুস্থ হওয়ার আগে তার মাঠে নামাটা অনিশ্চিত। তবে পয়েন্ট টেবিলের জটিল খেলা তিনি নিশ্চিত উপভোগ করেছেন। মাঠে না থাকলেও রুদ্ধশ্বাস এই জয়ে এরিকসেনের চেয়ে বেশি খুশি আর কেই-বা হবেন!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here