ম্যাকেঞ্জি স্কট বিশ্বের অন্যতম নারী শীর্ষ ধনী। ১৯৯৪ সাল থেকে অ্যামাজন প্রতিষ্ঠার জন্য বেজোসের সঙ্গে কাজ করেছেন তিনি। পরে ২০১৯ সালে বেজোসের সঙ্গে তার বিচ্ছেদ হয়। বিচ্ছেদ চুক্তি অনুযায়ী, অ্যামাজনের ৪ শতাংশ শেয়ার পান তিনি।
বিভিন্ন দাতব্য সংস্থায় ২৭০ কোটি ডলার দান করলেন ম্যাকেঞ্জি স্কট। ই–কমার্স জায়ান্ট অ্যামাজনের প্রতিষ্ঠাতা বিশ্বের শীর্ষ ধনী ব্যক্তি জেফ বেজোসের সাবেক স্ত্রী ম্যাকেঞ্জি এখন পর্যন্ত ৮৫০ কোটি ডলারের বেশি দান করেছেন। 

ম্যাকেঞ্জি বলেন, যারা ঐতিহাসিকভাবে উপেক্ষিত ও অর্থ সংকটে আছেন, তাদের এই অর্থ দিতে চান তিনি। এই অর্থ দেওয়ার জন্য তিনি জাতিগত বৈষম্য, কৃষ্টি ও শিক্ষা নিয়ে কাজ করে– এমন ২৮৬ টি সংস্থা বেছে নিয়েছেন। 

ম্যাকেঞ্জি স্কট বিশ্বের অন্যতম নারী শীর্ষ ধনী। ১৯৯৪ সাল থেকে অ্যামাজন প্রতিষ্ঠার জন্য বেজোসের সঙ্গে কাজ করেছেন তিনি। পরে ২০১৯ সালে বেজোসের সঙ্গে তার বিচ্ছেদ হয়। বিচ্ছেদ চুক্তি অনুযায়ী, অ্যামাজনের ৪ শতাংশ শেয়ার পান তিনি। ওই সময় এই শেয়ারের দাম ছিল প্রায় সাড়ে তিন হাজার কোটি ডলার। এই অর্থের বিশাল অংশ দান করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। 

গত বছর ম্যাকেঞ্জি স্কট জীবিত ব্যক্তি হিসেবে সবচেয়ে বেশি দান করেছেন। ফোর্বসের হিসেবে এত অর্থ দানের পরেও ৫১ বছর বয়সী এই নারী এখনো বিশ্বের ২২তম ধনী। বর্তমানে তার সম্পদের পরিমাণ ৫ হাজার ৯৫০ কোটি ডলার।
গত বছরের জুলাই মাসে ১৭০ কোটি ডলার দান করার ঘোষণা দিয়েছিলেন ম্যাকেঞ্জি। এরপর চার মাসেই ৪২০ কোটি ডলার অনুদান দিয়েছেন তিনি। 

চলতি বছরের মার্চে যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটলের এক বিজ্ঞান শিক্ষককে বিয়ে করেছেন ই-কমার্স জায়ান্ট আমাজনের প্রতিষ্ঠাতা জেফ বেজোসের সাবেক স্ত্রী ম্যাকেঞ্জি। দুই বছর আগে ২৫ বছরের দাম্পত্য জীবনে বিচ্ছেদ টানেন বেজোস ও ম্যাকেঞ্জি।
– somoynews.tv

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here