.

কোপা আমেরিকায় নিজেদের প্রথম ম্যাচে চিলির বিপক্ষে মাঠে নামবে লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা। আলবিসেলেস্তাদের ফেভারিট মানলেও আত্মবিশ্বাস নিয়ে লড়াইয়ের প্রত্যাশা চিলি কোচ মার্টিন লাসার্তের। মুখোমুখি শেষ দুই ম্যাচে ড্র করলেও জয় দিয়ে আসর শুরু করতে চায় আর্জেন্টিনাও। এস্তাদিও অলিম্পিকো নিলটন সান্তোসে ম্যাচ মাঠে গড়াবে বাংলাদেশ সময় রাত ৩ টায়। 

মেসির শূন্য হাতটা পূর্ণ করতে কোপার আসর জুড়ে আলো ছড়াতে হবে গোটা দলকে। শুরুটাও হতে হবে যুতসই। তবে প্রথম ম্যাচে প্রতিপক্ষ চিলি বলেই কি-না কাজটা মোটেও সহজ হবে না আর্জেন্টাইনদের। কোপার মঞ্চে চিলির নামটাই যে মেসিদের জন্য এক আতঙ্ক। ২০১৫-তে স্বাগতিক চিলির কাছে ফাইনালে হার। এক বছর পর আয়োজক বদলালেও শিরোপা নির্ধারণীর ম্যাচে প্রতিশোধ নিতে ব্যর্থ আলবিসেলেস্তারা। 

নিকট অতীত ঘেঁটেও স্বস্তি পাওয়ার উপায় নেই। কদিন আগেও বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে জয় হাতছাড়া হয়েছে লাতিন জায়ান্টদের। এবার নিশ্চয় আটঘাট বেঁধেই নামবেন স্কালোনি। তবে একটা দুঃসংবাদ আছে কোচের জন্য। করোনা পজিটিভ হওয়ায় গোলপোস্টে থাকছেন না আরমানি। দেখা যেতে পারে মার্চেসিনকে। ওটামেন্ডি-আকুনাদের রক্ষণটাও চিন্তায় রাখবে সমর্থকদের। যদিও একজন মেসি যে দলে থাকবেন, ফেভারিটের তকমা তাদের থেকে কেউই ছিনিয়ে নিতে পারবে না। আক্রমণে তার সহযোদ্ধারাও দুর্বার। মার্টিনেজ, ডি-মারিয়ারা ত্রাস ছড়াবেন যে কোনো রক্ষণে। লো সেলসো-পারাদেসরা মাঝমাঠে নির্ভরতার নাম। স্কালোনির সম্ভাব্য ফরমেশন ৪-৩-৩। 

চিলির জন্য চিন্তার কারণ আরও বড়। দলের প্রাণভোমরাকে ছাড়াই নামতে হবে ১৪ বারের চ্যাম্পিয়নদের বিপক্ষে। অনুশীলনে চোট পাওয়ায় অ্যালেক্সিস সানচেজকে থাকতে হবে সাইড বেঞ্চে। তার বদলি ফিলিপ মোরাও অবশ্য কম বিপজ্জনক নন। তার সঙ্গে এদয়ার্দো ভার্গাসের আক্রমণ জুটিটা ভোগাতে পারে আর্জেন্টিনাকে। ৪-৪-২ এর রক্ষণাত্মক স্টাইলে দুর্গটা নির্ভার রাখবেন ইসলা-মেডেলরা। ভিদালও এক চুল ছাড় দেবেন না সাবেক বার্সা সতীর্থকে।
দু’দলের ৯৩ দেখায় মাত্র ৮ বার জয় পেয়েছে লা রোজারা। ৬১ জয় আছে আর্জেন্টিনার। পরিসংখ্যানের পাতায় যদিও মিলবে না বাস্তব চিত্র। তবুও আত্মবিশ্বাস নিয়েই মাঠে নামবে লা আলবিসেলেস্তারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here