ছবিঃ United News Of Bangladesh

দিনভর নাটকীয়তা আর অনিশ্চয়তা। অবশেষে আয়োজক খুঁজে পেল দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবল কনফেডারেশন কনমেবল। আর্জেন্টিনার পরিবর্তে এ বছরের কোপা আমেরিকা অনুষ্ঠিত হবে ব্রাজিলে। এক বিবৃতিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবল নিয়ন্ত্রক সংস্থা। এর আগে সোমবার (৩১ মে) সকালে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় আর্জেন্টিনায় বাতিল করা হয় কোপা আমেরিকা।

বিশ্বের সবচেয়ে পুরনো বহুজাতিক আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট। কিন্তু ৪৭তম আসর যেন কোনোভাবেই মাঠে নামাতে পারছিল না কনমেবল। বারবার আসছিল বাধা। গত বছর অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও তা বাতিল হয়ে যায় করোনার প্রকোপে। পরিস্থিতি কিছুটা উন্নতি হওয়ায় এ বছরের জুনের ১৩ তারিখ নির্ধারণ করা হয় আসর শুরুর তারিখ।

কিন্তু সেখানেও আসে বাধা। রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে গেলো ২০ মে স্বাগতিক তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয় কলম্বিয়াকে। একক আয়োজক হয় আর্জেন্টিনা। দেশটির ৪ ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল লাতিন অঞ্চলের ফুটবল শ্রেষ্ঠত্বের এই আসর। তবে করোনার রক্তচক্ষুকে সম্ভব হয়নি উপেক্ষার। শেষ মুহূর্তে বাতিল করা হয় আর্জেন্টিনাকেও।

হাতে সময় নেই। নির্বাচন করতে হবে আয়োজক। বড় চ্যালেঞ্জ কনমেবলের সামনে। ছিল অনিশ্চয়তাও। আয়োজক হতে আগ্রহী ছিল চিলি, যুক্তরাষ্ট্র ও প্যারাগুয়ে। তবে ২৪ ঘন্টার আগেই নতুন আয়োজকের নাম ঘোষণা করলো দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবল নিয়ন্ত্রক সংস্থা। গেলোবারের মতো এবারও আসর হবে ব্রাজিলে। এক বিবৃতিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে কনমেবল।

তবে এরপরও কাটছে না অনিশ্চয়তা। কারণ করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর তালিকায় বিশ্বে যুক্তরাষ্ট্র-ভারতের পরেই অবস্থান ব্রাজিলের। এখন পর্যন্ত দেশটির আক্রান্ত প্রায় ১ কোটি ৬৫ লাখের বেশি। মৃত্যুবরণ করেছেন ৪ লাখ ৬২ হাজার মানুষ। রোববারও দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৩ হাজার মানুষ।

তাই এমন পরিস্থিতিতে দেশটিতে কোপা আমেরিকার মতো আসর আয়োজনের সমালোচনা করেছেন স্থানীয়রা।

তারা জানান, কোপা আমেরিকা আয়োজনের জন্য এটা আদর্শ সময় নয়। এই টুর্নামেন্ট আয়োজন হলে অনেক পর্যটক আসবে এখানে। মহামারী এখনো শেষ হয়নি, আমরা ভ্যাকসিনও পাইনি। এবারের আসর বাতিল করা উচিত।

আমাদের দেশ কোপা আমেরিকা আয়োজনের জন্য প্রস্তুত না। দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার অবস্থাও ভঙ্গুর। অন্য দেশ থেকে মানুষ এখানে আসলে পরিস্থিতি আরও খারাপ হবে।

আগের সূচি অনুযায়ী আসর শুরু হওয়ার কথা আগামী ১৩ জুন। তবে আয়োজক হিসেবে ব্রাজিলের নাম ঘোষণা করলেও শেষ পর্যন্ত কী হয় তার জন্য অপেক্ষায় থাকতেই হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here